1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
"...একটি জাতি গঠণ কর্ম..." - মুক্তকথা
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১০:২১ পূর্বাহ্ন

“…একটি জাতি গঠণ কর্ম…”

বিশেষ প্রতিনিধি॥
  • প্রকাশকাল : বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৫২১ পড়া হয়েছে


বাংলাদেশ ও ভারতের হাইকমিশনের আয়োজনে লন্ডনে

‘মুজিব: দ্য মেকিং অফ আ নেশন’-এর

বিশেষ পর্দায়ন(স্ক্রিনিং)

লন্ডন 
লন্ডনে বাংলাদেশ ও ভারতের হাইকমিশন যৌথভাবে লন্ডনের একটি পাঁচতারকা থিয়েটারে গেল ১১ নভেম্বর ২০২৩ সোমবার সন্ধ্যায় “মুজিব: দ্য মেকিং অফ আ নেশন” এর একটি বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজন করে। গৌরবময় ‘বিজয়ের মাস’ এবং বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্ব উদযাপনের জন্য এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল এবং এতে ব্রিটিশ-বাংলাদেশী ও ব্রিটিশ-এশীয়দের উপস্থিতিতে অনুষ্ঠানঘর পরিপূর্ন ছিল। ব্রিটিশ হাউস অফ লর্ডসের সদস্য, কূটনীতিক, ব্রিটিশ শিক্ষাবিদ এবং পেশাদার ও মূলধারার সাংবাদিকরাও সোমবার সন্ধ্যায় বিশেষ পর্দায়নে(স্ক্রিনিংয়ে) অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপদেষ্টা ও বায়োপিকের প্রধান উপদেষ্টা ড. গওহর রিজভী। যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম এবং যুক্তরাজ্যে ভারতের হাইকমিশনার বিক্রম কে. দোরাইস্বামী স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্যে ডঃ গওহর রিজভী বলেন, “চলচ্চিত্রটি একটি ঐতিহাসিক দলিল যা বঙ্গবন্ধুর জীবনকাহিনী ও দীর্ঘ সংগ্রামের সারমর্মকে ধারণ করে”। তিনি উল্লেখ করেন যে চলচ্চিত্রটির আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত পরিচালক শ্যাম বেনেগাল আড়াই বছরে বঙ্গবন্ধুর জীবন, সংগ্রাম এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য আত্মত্যাগের দীর্ঘ ইতিহাসকে স্থান দিয়ে ঐতিহাসিক বিষয়বস্তু অক্ষুণ্ণ রাখার একটি চমৎকার কাজ করেছেন।

হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম তার স্বাগত বক্তব্যে বলেন, “এই বায়োপিকটি দক্ষিণ এশিয়ার একজন নেতার অসাধারণ জীবন এবং স্থায়ী উত্তরাধিকার উপস্থাপন করে যিনি বাংলাদেশ এবং এর জনগণের স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছিলেন। নোবেল বিজয়ী অমর্ত্য সেন তাকে ‘বিশ্ববন্ধু’ – বিশ্ববন্ধু বলে উল্লেখ করেছেন এবং ২০০৪ সালে একটি বিশ্বব্যাপী সমীক্ষা চালানোর পর বিবিসি তাকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি হিসেবে অভিহিত করে।”

ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কে. দোরাইস্বামী তার বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত সংযোগ এবং চলচ্চিত্রে অবদানের কথা বলেন। তিনি বলেছিলেন যে প্রধানমন্ত্রী এই প্রকল্পটি তার হৃদয়ে রেখেছেন কারণ তিনি ব্যক্তিগতভাবে সেই ইতিহাসের সাথে যুক্ত থাকতে চান যার অংশ ছিলেন।

দোরাইস্বামী আরও বলেন, বঙ্গবন্ধুর মহাকাব্যিক সংগ্রামের গল্প ছাড়া বাংলাদেশের গল্প বলা যায় না এবং চলচ্চিত্রের গুরুত্ব এবং কীভাবে এটি বাংলাদেশের অতীত সম্পর্কে শেখার এবং ভবিষ্যত প্রজন্মের কাছে পাঠ দেওয়ার সুযোগ দেয় তার উপর জোর দেন।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT