1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
হার না মানা "হারমণি অব দি সিজ" - মুক্তকথা
বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন

হার না মানা “হারমণি অব দি সিজ”

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : মঙ্গলবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ৬৫৭ পড়া হয়েছে

3500

মুক্তকথা: লন্ডন, মঙ্গলবার ২৭শে সেপ্টেম্বর ২০১৬।। ইংলিশ নাম- “হারমনি অব দি সিজ”। বাংলায় বললে বলতে হবে- ‘সাগরে নন্দন কানন’। সাউথহ্যাম্পটনের উদ্দেশ্যে রওয়ানা হবার জন্য রংতুলির শেষ কাজ চলছে। বানাতে খরচ পড়েছে প্রায় ১ বিলিয়ন ইউএস ডলার। এর মধ্যে রয়েছে ১২ হাজার জাতের ছোট ও মাঝারি লতাগুল্মসহ বৃক্ষরাজি দিয়ে সাজানো বাগান। বাহির থেকে দেখতে পুরো ১৬তলা একটি বিশালাকৃতির দালান ভেতর থেকে দেখলে মনে হয় একটি ছোট্ট শহর। আর কাজের মানুষসহ মোট মানুষ থাকার ব্যবস্থা রয়েছে ৮,৫০০জনের। এটি দুনিয়ার সবচেয়ে বড়ই শুধু নয় দামীও। ইতিপূর্বে  এতো বিশাল অংকের ডলার খরচ করে এতো বিশাল আকৃতির কোন কিছু কেউই বানায়নি। এটিই প্রথম।

এর মধ্যে আনন্দ উৎসবের জন্য যেমন রয়েছে ১৪০০ আসনের থিয়েটার হল তেমনি বিনোদনের জন্য রয়েছে দশতলা সমান উঁচু থেকে নেমে আসা জলধারা (ওয়াটার স্লাইড)। এক ফার্লং এলাকা নিয়ে তার পাশ (৬৬মিটার বা ২১৭ ফুট প্রস্ত) যখন দৌড়ে আইফেল টাওয়ার থেকেও ৫০মিটার বেশী। এখানে আছে বেয়ে উঠার জন্য  কৃত্তিম পাহাড়, ছোট আকারের গল্ফ খেলার মাঠ, কেসিনো, বার, হাট-বাজার আরো কত কি বলে শেষ করা যাবে না। পুরো একটি অত্যাধুনিক শহর আর কি!

3500-2দুনিয়ার সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক এক যানবাহনের কথা বলছিলাম। সে এক নব্য “টাইটানিক”। টাইটানিক দূর্ঘটনা কবলিত হয়ে পড়েছিল আইসবার্গের সাথে ধাক্কা লেগে। কিন্তু এই নতুন জলযান আইসবার্গকে গিলে খাবে এমন তার বিশালতা। এর আগে দুনিয়ার আর কেউ এতোবড় কোন বাহন নির্মাণ করেনি। ১লাখ ২০হাজার টন ওজনের “হারমণি অব দি সিজ” নামের অত্যাধুনিক এই বাণিজ্যপোত নির্মাণ করেছে ‘এসটিএক্স ফ্রান্স’ নামের ফরাসী একটি কোম্পানী, আটলান্টিকে অবস্থিত তাদের “সেন্ট নাজারে ইয়ার্ড”এ। এই বৃহস্পতিবারে তা হস্তান্তর করা হবে আমেরিকা ভিত্তিক মালিক কোম্পানী “রয়েল কেরিবিয়ান ক্রুইজেজ লিঃ”কে। সাগরে ভাসানোর পর মনে হয়েছিল এ যেনো এক ভাসমান শহর লিখেছেন “গার্ডিয়ান”।

ভারতীয় পৌরানিক কাহিনীর দৈত্য এই ভাসমান সাগর দৈত্যের কাছে মরহুম হুমাইউন আহমদের ভাষায় ‘তেজপাতা’।  সাগরে পর্বতসম এই জলযান যাত্রী হিসাবে ৬ হাজার ৩ শহ ৬০জন এবং জাহাজ কর্মী হিসেবে আরো ২ হাজার ১ শত জনকে বহন করার ক্ষমতা রাখে। জাহাজের আছে একটি বায়োনিক বার যেখানে দু’জন রবোটিক ‘বারমেন’ যাত্রীসেবায় কাজ করবে। আরো আছে পুরো একটি বাজার যেখানে ২৪টি বিভিন্ন ধরনের দোকান রয়েছে।

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিক হলো ২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে শুরু করে ৪০ মাসে নির্মাণ সমাপ্ত করেছে ১৫০ বছর বয়সের ওই ফরাসী কোম্পানী। সর্বমোট আড়াই হাজার শ্রমিকের মোট ১কোটি শ্রমঘন্টার বিনিময়ে নির্মিত হয়েছে দুনিয়ার সেরা এই নব্য ‘টাইটানিক’ “হারমণি অব দি সিজ”। টাইটানিক বললাম সেই বৃহৎ অর্থে। পরিবেশের দিক থেকে “হারমণি”  তার অপর দু’টি ক্রুইজ থেকে শতকরা ২০ভাগ কার্বণ দূষণ কম করবে।

4134-1রোববারে “হারমণি অব দি সিজ” দক্ষিণ ইংল্যান্ডের সাউথাম্পটন আসবে। এখান থেকে ২২শে মে তার নব্য নিজ বন্দর বার্সিলোনার পথে রওয়ানা দেবে। সেখান থেকে অক্টোবরের শেষ দিক থেকে তার নৈমিত্তিক ভ্রমণবিলাসী চলাচল শুরু করবে। এই “রয়েল ক্যারিবিয়ান ক্রুইজেজ লিঃ”এর আরো দু’টি জলদৈত্য রয়েছে যার একটির নাম “এলিওর অব দি সিজ” এবং “ওয়াসিজ অব দি সিজ”। ওই দু’টো হারমণি’র চেয়ে বেশ ছোট।

“এসটিএক্স ফ্রান্স” তার ১৫০ বছরের জীবনে ১২০টি ক্রুজ জাহাজ নির্মাণ করেছে এবং আরো ১১টির নির্মাণ কাজ অব্যাহত আছে যা শেষ করতে হবে আগামী দশকের মধ্যে। (গার্ডিয়ান অবলম্বনে)

 

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT