1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
প্রবাস রাজনীতি - মুক্তকথা
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৪:৫৩ পূর্বাহ্ন

প্রবাস রাজনীতি

বিশেষ প্রতিবেদক॥
  • প্রকাশকাল : বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪
  • ১০৪ পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক আদালতে পাঞ্জাব গণহত্যার বিচার
ও স্বাধীন খালিস্তান রাষ্ট্রের দাবীতে
লন্ডনে শিখদের শোভাযাত্রা ও সমাবেশ

লন্ডন

পাঞ্জাব গণহত্যার ৪০তম বার্ষিকী ও স্বাধীন খালিস্তান রাষ্ট্রের দাবীতে গতকাল ১৬জুন ২০২৪ খৃষ্টাব্দ রোববার লন্ডনে প্রতিবাদ সমাবেশ ও শোভাযাত্রা করেছে ভারতীয় শিখজনগোষ্ঠী। ‘ওয়ার্ল্ড শিখ পার্লামেন্ট’ সহ কয়েকটি শিখ সংগঠনের ডাকে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। ইংল্যাল্ড এর বিভিন্ন শহর থেকে সকল বয়সী নারী-পুরুষ শিশু সহ ৬/৭ হাজার শিখ ধর্মাবলম্বী সমাবেশে অংশ নেয়। সকাল থেকেই বার্মিংহ্যাম, লেষ্টার, নটিংহাম, মানচেষ্টার, লিডস, ডারবী ও অন্যান্য শহর থেকে শিখরা লন্ডনের হাইড পার্কে এসে সমবেত হয়।

এখানে অনুষ্টিত হয় সমাবেশ ও প্রার্থনা। এর পর শিখগন দুপুর এক ঘটিকায় শোভাযাত্রা নিয়ে হাইডপার্ক থেকে চলে যায় লন্ডনের ট্রাফলগার স্কয়ারে। এখানেও অনুষ্ঠিত হয় সমাবেশ। সমাবেশ কারী সংগঠন গুলোর মধ্যে রয়েছে- ‘শিখ ফর জাষ্ট্রিজ’, ‘ওয়াল্ড শিখ পার্লামেন্ট’, ‘শিখ ফেডারেশন ইউকে’, ‘শিখ ইয়োথ সার্ভিস ইউকে’, ‘শিখ এ্যাসোসিয়েশন ইউকে’, ‘খালিস্তান মুভমেন্ট’, ‘ওয়াল্ড শিখ উইম্যান ফোরম’।

সমাবেশ কারীরা কোন সংগঠনের ব্যানার বহন না করলেও সমাবেশকারীদের হাতে ছিল পাঞ্জাব গণহত্যা ও খালিস্তানের পতাকা ও পুষ্পস্তবক। এসময় তারা তাদের দাবি সম্বলিত প্রচারপত্র বিতরন করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ওয়াল্ড শিখ পার্লামেন্ট নেতা সুরন্দর সিং, শিখ এ্যাসোসিয়েশনের হিম পাল সিং, শিখ ফর জাষ্টিজের রনজিত সিং, বিক্রম সিং প্রমুখ।

এসময় বক্তারা বলেন ভারত সরকার যে ভাবে শিখদের উপর হত্যা নির্যাতন চালাচ্ছে তা মধ্যযুগীয় বর্বরতাকেও হার মানায়। যুগের পর যুগ ধরে চলছে অত্যাচার, শিখরা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত। বিদেশেও শিখরা নিরাপদ নয়, ভারতীয় গোয়েন্দারা বিদেশে শিখ নেতাদের হত্যা করছে। এযাবত লক্ষাধিক শিখকে হত্যা করা হয়েছে। অসংখ্য শিখকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে। এক মিলিয়ন শিখ দেশ ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে।

ভারত বিভক্তির সময় কথা ছিল শিখদের স্বায়ত্ব শাসন দেয়া হবে। ভারত সরকার তা করেনি। তাই আমরা আমাদের স্বাধীনতা ও গণহত্যার বিচারের দাবিতে সোচচার হয়েছি। আন্তর্জাতিক আদালতে ১৯৮৪ সাল থেকে শুরু করে এযাবত সকল গণহত্যার বিচার চাই। জাতিসংঘ সহ বিশ্ব বিবেক এবং আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোর প্রতি আহবান জানাচ্ছি শিখদের পাশে দাড়ানোর জন্য।

বক্তারা বলেন ১৯৮৪ সালে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর সময় ভারতীয় সেনাবাহিনী স্বর্ন মন্দিরে প্রবেশ করে প্রার্থনারত শিখদের হত্যা করেছিল। এর পর থেকেই চলছে হত্যা নির্জাতন। ইন্দিরা থেকে নরেন্দ্র মোদী কোন সরকারের সময়ই শিখরা নিরাপদ নয়। শুধু শিখ নয় সংখ্যালঘু মুসলিম, খৃষ্টান এবং অন্যান্য ধর্মালম্বীরা হিন্দুদের কাছে নির্জাতিত হয়ে আসছে।

এসময় শিখরা-খালিস্তান জিন্দাবাদ, ইন্ডিয়া আউট, উই ওয়ান্ট জাষ্ট্রিজ, ইত্যাদি শ্লোগান দেয়। খালিস্তানকে ভারতের কবল থেকে মুক্ত না করে ঘরে ফিরবনা এই ঘোষনা দিয়ে সমাবেশের সমাপ্তি ঘটে বিকেল পাঁচটায়।


 

 

“বঙ্গবন্ধুর বিশ্বখ্যাত জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫১ বছর উপলক্ষে
ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সভা

 

নাজমুল সুমন

 

যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এঁর “জুলিও কুরি” শান্তি পদক প্রাপ্তির ৫১ বছর উদ্‌যাপন উপলক্ষে ইউকে ওয়েলস আওয়ামী লীগের উদ্দ্যোগে গত ২৯ শে মে বুধবার বৃটেনের ওয়েলস এর রাজধানী কাডিফ শহরে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য ও ওয়েলস আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ মকিস মনসুর এর সভাপতিত্বে এবং ওয়েলস আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক প্রাক্তন ছাত্রনেতা এম.এ.মালিক এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন ওয়েলস আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি সাইফুল ইসলাম নজরুল, সহ সভাপতি এস এ রহমান মধু, ওয়েলস আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক গোলাম মর্তুজা, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব লিয়াকত আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক মল্লিক মোসাদ্দেক আহমেদ, ওয়েলস আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব আনকার মিয়া, ওয়েলস যুবলীগের সাবেক সভাপতি জয়নাল আহমদ শিবুল,জাস্টিস ফর জেনোসাইড ১৯৭১ ইন ইউকের ওয়েলসের কনভেনার আলহাজ্ব আসাদ মিয়া, ডেপুটি কনভেনার আলহাজ্ব লিলু মিয়া, ওয়েলস কৃষক লীগের সভাপতি শেখ মোহাম্মদ আনোয়ার, সাবেক যুবলীগ নেতা আব্দুল ওয়াহিদ বাবুল, জহির আলী, ওয়েলস বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব ছালিক মিয়া, সাধারন সম্পাদক সৈয়দ ইকবাল আহমেদ, ওয়েলস যুবলীগের সভাপতি ভিপি সেলিম আহমদ, সিনিয়র সহ সভাপতি আবুল কালাম মুমিন, সহ সভাপতি রকিবুর রহমান, সাধারন সম্পাদক মফিকুল ইসলাম, ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এ বি রুনেল, ওয়েলস ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ বদরুল হক মনসুর, শেখ সুমন তরফদার, আব্দুল বারিক,আসাদ মিয়া, মোহাম্মদ ফয়ছল মনসুর, নজির আহমদ, কামাল আহমদ, নুরুল ইসলাম, সাইফুর রহমান, জয়নাল ইসলাম জাংগির বকত আতাউর রহমান, আব্দুল আজিজ এনাম আহমেদ, ফকরুল ইসলাম, ইকবাল আহমেদ ও সেবুল আলী, সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সভায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে ওয়েলস আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক প্রাক্তন ছাত্রনেতা এম.এ.মালিক বলেন, বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠায় বঙ্গবন্ধুর অসামান্য অবদানের প্রথম আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি হলো “জুলিও কুরি শান্তি পদক” যা আমাদের জন্য অত্যন্ত সম্মানের।
সভাপতির বক্তব্যে ওয়েলস আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা মোহাম্মদ মকিস মনসুর বলেন, বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর নেতৃত্বে, দীর্ঘ নয় মাস মুক্তি সংগ্রামের মাধ্যমে ১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়। ফ্যাসিবাদবিরোধী, সাম্রারাজ্যবাদবিরোধী ও শোষণের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামকে বিশ্ব মানবতার ইতিহাসে চির অম্লান করে রাখার জন্য বিশ্ব শান্তি পরিষদ ১৯৭৩ সালের ২৩ মে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে জুলিও কুরি শান্তি পদক প্রদান করে।

এ সম্মান পাবার পর বঙ্গবন্ধু তাঁর বক্তৃতায় বলেছিলেন, জুলিও কুরি শান্তি পদক সমগ্র বাঙালী জাতির। তিনি বঙ্গবন্ধুর উদ্ধৃতি “রাজনৈতিক স্বাধীনতা অর্থহীন হয়ে যাবে, যদি অর্থনৈতিক স্বাধীনতা অর্জিত না হয়”-কে স্মরণ করে সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে স্ব-স্ব অবস্থান থেকে কাজ করার জন্য প্রবাসীদের আহবান জানান।


 

“বৃটেনের কার্ডিফ বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন এর
নতুন সেন্টার এর উদ্ভোধন

 

আতিকুল ইসলাম

 

বৃটেনের কার্ডিফ বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ১৯৯৪ সাল থেকে আজবধি কার্ডিফ কমিউনিটির উন্নয়নে ও, মানবতার কল্যাণে নিষ্টা ও নিরলসভাবে কাজ করে চলছে।

বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা ও আনন্দঘন পরিবেশে কমিউনিটির সবস্তরের নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের মাধ্যমে গত সোমবার ১০ ই জুন বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার সেন্টার এর নতুন বিল্ডিংয়ের এর শুভ উদ্ভোধন ঘোষণা করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান কমিউনিটি লিডার মোহাম্মদ আব্দুল হান্নান এর সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কমিউনিটি সংগঠক আসকর আলীর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে কার্ডিফ কাউন্টি কাউন্সিলার দিলওয়ার আলী, গ্রেটার সিলেট কমিউনিটি ইউকে কেন্দ্রীয় কমিটির কনভেনার কমিউনিটি লিডার ও বিশিষ্ট সাংবাদিক মোহাম্মদ মকিস মনসুর, গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ইউকের কেন্দ্রীয় ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আনোয়ার, সুনামগঞ্জ এসোসিয়েশনের প্রাক্তন চেয়ারম্যান প্রবীণ কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব সিরাজ আলী, বাংলাদেশ এসোসিয়েশনের সেক্রেটারি হারুন তালুকদার, ওয়েলস আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব লিয়াকত আলী, নিউপোট যুবলীগের সভাপতি শাহ শাফি কাদির, গ্রেটার সিলেট কমিউনিটি ইউকে সাউথ ওয়েলসের কনভেনার মুজিবুর রহমান, সদস্য সচিব রকিবুর রহমান, কার্ডিফ বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এর ডিরেক্টর শফিক মিয়া,নজির উদ্দিন, মাহমুদ হোসেইন, ও মাহমুদ মিয়া চৌধুরী, সহ কমিউনিটির বিশিষ্ট জনেরা বক্তব্য রাখেন।

উদ্ভোধনের মাধ্যমে ওয়েলফয়ার সেন্টার কমিউনিটির জন্য উম্মুক্ত করে দেওয়া হলো, কমিউনিটির প্রয়োজনে সেন্টার সবাই ব্যাবহার করতে পারবেন বলে উল্লেখ করে ওয়েলফেয়ার এর পক্ষ থেকে জনসাধারণের জন্য ইমিগ্রেশন, হাউজিং, কনসূলার ও হেলথকেয়ার সহ নানা প্রয়োজনীয় সার্ভিস প্রদান করা হবে বলে সংগঠন এর ট্রাষ্টি ও পরিচালকবৃন্দ জানিয়েছেন।

উদ্ভোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শাহজালাল মসজিদ কমিটির প্রাক্তন ট্রাষ্টি প্রবীণ কমিউনিটি ব্যাক্তিত আব্দুল আহাদ চৌধুরী, কার্ডিফ শহীদ মিনার কমিটির ফাউন্ডার্স প্রেসিডেন্ট আনোয়ার আলী, কার্ডিফ শাহজালাল বাংলা সকুলের প্রাক্তন শিক্ষক ড. দেওয়ান আব্দুল লতিফ, শাহজালাল মসজিদ কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আলী আকবর,মাওলানা খায়রুল ইসলাম, বিশিষ্ট সাংবাদিক কারী মোজাম্মেল আলী, শাহজালাল মসজিদ কমিটির চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আব্দুল মুমিন, সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান টুটুল চৌধুরী, গ্রেটার সিলেট কমিউনিটি ইউকে সাউথ ওয়েলসের জয়েন্ট কনভেনার জিমি খান, সাউথ ওয়েলসের অর্থ সচিব এবি রুনেল, একাটুনা ইউনিয়ন ডেভেলপমেন্ট এন্ড ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন এর ফাউন্ডার্স ট্রাষ্টি আব্দুর রুউফ তালুকদার, সাবেক ছাত্রনেতা আব্দুল ওয়াহিদ বাবুল, ইকবাল আহমেদ, ওয়েলস ছাত্রলীগের সভাপতি মোহাম্মদ বদরুল হক মনসুর, আনজুমানে আল ইসলাহ ওয়েলসে সেক্রেটারি আনসার মিয়া, আহাদ মিয়া, ইয়াওর আলী, দিলওয়ার চৌধুরী, তৈমুছ আলী, সুন্দর মিয়া,শহিদুল ইসলাম, মোহাম্মদ ফয়ছল মনসুর, সাংবাদিক আতিকুল ইসলাম,ময়না মিয়া, হাজী আব্দুল হামিদ, জিলু মিয়া, বিলাত মিয়া, ইকবাল আহমেদ সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
পরিশেষে মধ্যাহ্ন ভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়েছে।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT