1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
বিলেতে বাঙ্গালী - মুক্তকথা
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ০৫:০২ পূর্বাহ্ন

বিলেতে বাঙ্গালী

আনসার আহমেদ উল্লাহ॥
  • প্রকাশকাল : শুক্রবার, ৩ মে, ২০২৪
  • ১০৮ পড়া হয়েছে


বৈধ পথে রেমিটেন্স পাঠানোর জন্য ব্রিটিশ বাংলাদেশিদের প্রতি


প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রীর আহ্বান

 

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি বৈধ পথে রেমিটেন্স পাঠিয়ে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে বিশেষ ভূমিকা রাখার জন্য ব্রিটিশ-বাংলাদেশিদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, “বৈধ পথে বাংলাদেশে প্রবাসিদের প্রেরিত অর্থ সুরক্ষিত থাকবে এবং এই অর্থ থেকে সরকারি প্রণোদনাসহ সঞ্চয় ও বিনিয়োগের মাধ্যমের অন্যান্য দেশের তুলনায় বেশি মুনাফা অর্জনের সুযোগ রয়েছে।”

গত ২৬ এপ্রিল বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন কর্তৃক আয়োজিত রেমিট্যান্স মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, “যারা বৈধ পথে সর্বোচ্চ রেমিটেন্স পাঠাবেন তাদের জন্য ‘রেমিটেন্স এওয়ার্ড’ প্রবর্তনের পরিকল্পনা রয়েছে।” তিনি বলেন, রেমিট্যান্স প্রেরণের জন্য ২.৫% প্রণোদনা থেকে ৩% বৃদ্ধির যে প্রস্তাব রেমিটেন্স প্রেরণকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা জানিয়েছে, তা বিবেচনার জন্য সরকারের উচ্চ পর্যায়ে উত্থাপন করা হবে।“

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম বলেন, “জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭৪ সালে যুক্তরাজ্যে সোনালী ব্যাংক চালু করে যুক্তরাজ্য থেকে বৈধ পথে বাংলাদেশে রেমিটেন্স পাঠানোর সূচনা হয়। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও নীতি অনুসরণ করে তাঁরই সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রেমিট্যান্স প্রেরণের জন্য ২.৫% প্রণোদনা ও সিআইপি মর্যাদাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রবাসীদের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা প্রদানের জন্য সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। হাইকমিশনার বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন রেমিটেন্স এওয়ার্ড প্রবর্তনের পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানে রেমিটেন্স প্রেরণকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা তাদের জন্য বিশেষ প্রণোদনাসহ উৎসাহব্যঞ্জক পদক্ষেপ গ্রহণের বিভিন্ন প্রস্তাব উত্থাপন করলে প্রতিমন্ত্রী এসব বিবেচনার আশ্বাস প্রদান করেন।

বাংলাদেশে রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়াতে পূর্ব লন্ডনে বাঙালি অধ্যুষিত এলাকায় স্থানীয় সময় শুক্রবার বাংলাদেশ হাই কমিশন লন্ডনের এই বিশেষ মেলায় রেমিটেন্স প্রেরণকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরাও বক্তব্য রাখেন। মেলায় যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স প্রেরণকারী প্রধান ১৪টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়ে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরনের সুযোগ-সুবিধা ও প্রণোদনা সম্পর্কে মেলায় আগত দর্শকদের অবহিত করে।


 


আলতাব আলী ফাউন্ডেশন

প্রবাসী বাঙালিদের অবদানের স্বীকৃতি দাবি করেছে

 

 

লন্ডন, ৩ মে ২০২৪: আলতাব আলী ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে বাঙালি প্রবাসীদের অবদানকে আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

সভাপতি নুরুদ্দিন আহমেদ এবং সাধারণ সম্পাদক আনসার আহমেদ উল্লাহর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল গত ২ মে লন্ডনে বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপির সাথে দেখা করেন। তারা মন্ত্রীকে তার নিয়োগে অভিনন্দন জানান এবং তাকে মনোনয়ন দেওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

ফাউন্ডেশন হাইলাইট করে যে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর থেকে ৫০ বছরেরও বেশি সময় ধরে, প্রবাসীদের ভূমিকার কোনও বাস্তব স্বীকৃতি পাওয়া যায়নি। প্রবাসী বাঙালিরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে মুক্ত করতে এবং পরবর্তী মুক্তির সংগ্রামে রাজনৈতিক আন্দোলনের মাধ্যমে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন।

মন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপিতে আলতাব আলী ফাউন্ডেশন ঢাকায় মন্ত্রণালয়ের প্রবেশপথে একটি ম্যুরালসহ একটি স্থায়ী তোরণ স্থাপনের প্রস্তাব করেছে। এটি স্বাধীনতা আন্দোলনে যুক্তরাজ্যের বাঙালি প্রবাসীদের প্রধান ভূমিকাকে সম্মানিত করবে।

তাছাড়া হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের মোড়ে একটি স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণের আহ্বান জানিয়েছে ফাউন্ডেশন। এটি বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশী অভিবাসীদের অপরিসীম অর্থনৈতিক অবদান এবং বিশ্বব্যাপী বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির প্রচারে তাদের উত্সর্গকে স্মরণ করবে।

“আমাদের প্রবাসীরা বাংলাদেশের কষ্টার্জিত স্বাধীনতা রক্ষায় একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে এবং আমাদের দেশের অগ্রগতির জন্য অটল দূত হয়েছে,” বলেছেন নুরউদ্দিন আহমেদ। “এখন সময় এসেছে তাদের ত্যাগ এবং চলমান প্রতিশ্রুতি বাংলাদেশের বিশিষ্ট স্মৃতিসৌধের মাধ্যমে সরকারী স্বীকৃতি পাওয়ার।”

প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী এমপি ফাউন্ডেশনের প্রতিনিধি দলকে তাদের প্রস্তাবগুলো যথাযথ বিবেচনার জন্য সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার আশ্বাস দেন।


 


ছাতক এডুকেশন ট্রাস্ট কার্যকরী কমিটির সভা অনুষ্টিত

 

 

 

গত ২২ এপ্রিল বার্মিংহামে ছাতক শিক্ষা ট্রাস্ট ইউকের এক কার্যনির্বাহী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি জনাব রুহুল আমিন সভাপতিত্বে, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মনসুজ্জামান মোহন ও যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক অনন্ত কাসেম হিজলের যৌথ পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন প্রধান পৃষ্ঠপোষক এস এম সুজন, উপদেষ্টা মন্ডলীর সভাপতি জনাব আলহাজ্ব বশির মিয়া কাদির, সিনিয়র সহ-সভাপতি জনাব আলহাজ্ব গোলাম আজম তালুকদার, সহ সভাপতি জনাব শরীফ উল্যাহ তালুকদার, সহ সভাপতি চুনু মিয়া, সহ-সভাপতি শাহ কুহিনূর খোকন, কোষাধ্যক্ষ আসকর আলী, যুগ্ম সম্পাদক সাবেক প্রভাষক জনাব আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস শহিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ আবুল লেইস, সাংগঠনিক সম্পাদক সায়েক কবির তাজুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল মিয়া নজরুল ইসলাম, শাহরিয়ার কবির, প্রকাশনা সম্পাদক আলমগীর শাহরিয়ার, ক্রীড়া সম্পাদক আব্দুল বাসিত লিমন, মোসাদ্দেক হোসেন বাচ্চু, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান, আলহাজ্ব দিলাল উদ্দিন, আলহাজ্ব নুর আলী, তাজ উদ্দিন, ফেরদৌস আহমদ, আবু হেলাল, মারুফ আহমেদ, অতিথি সিরাজুল ইসলাম, মোহাম্মদ আবদুল কুদ্দুস, মাওলানা রশিদ আহমেদ ও সৈয়দ নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

সভায় বক্তারা জোর দিয়ে বলেন, ছাতক এলাকার সুবিধাবঞ্চিত শিক্ষার্থীদের সহায়তার জন্য ছাতক এডুকেশন ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। আর এ জন্য শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদান রাখার লক্ষ্যে তারা ছাতকে একটি মোবাইল লাইব্রেরিসহ ছাতকে একটি শিক্ষিত দক্ষ কর্মী বাহিনী তৈরির জন্য শিক্ষাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে এ বছর ছাতকের সব স্কুলে বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিটি।

সভায় বক্তারা বলেন, ছাতক এলাকার সুবিধা বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের সহায়তার জন্য ছাতক এডুকেশন ট্রাস্ট প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। আর এ জন্য শিক্ষা ক্ষেত্রে অবদান রাখার লক্ষ্যে সংগঠনটি একটি মোবাইল লাইব্রেরিসহ ছাতকে একটি শিক্ষিত দক্ষ কর্মী বাহিনী তৈরির জন্য শিক্ষাকেন্দ্র প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এছাড়াও এ বছর ছাতকের সব স্কুলে বিতর্ক প্রতিযোগিতা শুরু করার সিদ্ধান্ত নেয় কমিটি।

সভার শুরুতেই পবিত্র কোরান তেলায়াত করেন, মাওলানা মুজাহিদ উদ্দিন। বার্মিংহামে সভা আয়োজনের জন্য উপদেষ্টামন্ডলীর সভাপতি আলহাজ্ব বশির মিয়াকে কমিটির পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানানো হয়। ঈদ ও বাংলা নতুন বছর পুনর্মিলনী ভোজের মাধ্যমে অনুষ্টানের সমাপ্তি ঘটে।


 

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT