1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
বেসরকারী ব্যাংকের মাঝে প্রাইম ব্যাংকই সেরা - মুক্তকথা
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৯:৫৭ পূর্বাহ্ন

বেসরকারী ব্যাংকের মাঝে প্রাইম ব্যাংকই সেরা

সম্পাদকীয়
  • প্রকাশকাল : বুধবার, ১৫ মে, ২০২৪
  • ১২১ পড়া হয়েছে

গেলো মাস ও চলতি মাসে বাংলাদেশের প্রায় সকল সংবাদ মাধ্যম দেশের ব্যাংক ব্যবস্থার উপর ভিন্ন ভিন্ন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এসকল প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, দেশের আটটি ব্যাংক ভালো অবস্থায় রয়েছে। মোট ৫৪টি ব্যাংকের মধ্যে ১২টির অবস্থা অত্যন্ত নাজুক, যার ৯টি ইতিমধ্যে লাল অবস্থানে চলে গেছে৷ দেশের ৫৪টি ব্যাংকের অবস্থা বিশ্লেষণ করে ছয়টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকসহ মোট ৩৮টি ব্যাংককে দুর্বল ব্যাংক হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কেউ কেউ শিরোনাম দিয়েছেন- দুর্বল অবস্থায় দেশের ব্যাংক খাত বলে। আবার আরো কেউ লিখেছেন-‘মানছে না নিয়মনীতি, ব্যবস্থাপনাগত ত্রুটি, পরিচালনা পর্ষদের দায়িত্বহীনতা ও বাংলাদেশ ব্যাংকের শিথিলতায় দেশের ব্যাংকগুলোর স্বাস্থ্যের দিন দিন অবনতি হচ্ছে। ফলে এখন দেশে সবলের চেয়ে দুর্বল ব্যাংকের সংখ্যা বেশি হয়ে গেছে।’

ব্যাংক ব্যবসার অবস্থা

সম্প্রতি ২০২৩ সালের জুন থেকে অর্ধ-বার্ষিক আর্থিক কর্মক্ষমতার ভিত্তিতে ব্যাংকের স্বাস্থ্য সূচক তৈরি করে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আর্থিক স্থিতিশীলতা বিভাগ। ওই সূত্রের প্রদত্ত তথ্যগুলিকে কেন্দ্র করেই সংবাদ মাধ্যমগুলো তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। 

তবে ভিন্নতা থাকায় বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক এবং আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক বিশ্লেষণ থেকে বাদ পড়েছে।

অন্যদিকে, পর্যাপ্ত তথ্যের অভাবে বেঙ্গল কমার্শিয়াল ব্যাংক, সিটিজেন ব্যাংক, কমিউনিটি ব্যাংক বাংলাদেশ ও প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংককে বিবেচনায় নেওয়া হয়নি।

 

প্রাইম ব্যাংক পুরস্কৃত

বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম তাদের অনলাইন প্রতিবেদনে প্রাইম ব্যাংকের ৩টি পুরস্কার পাবার কথা লিখেছেন। বেসরকারি প্রাইম ব্যাংক পিএলসি বাংলাদেশে টেকসই অর্থায়নে অবদান রাখায় এবং এই খাতে শীর্ষ স্থান ধরে রাখায় “গ্লোবাল অ্যাসেট ট্রিপল এঅ্যাওয়ার্ড-২৩”–এ মোট তিনটি পুরস্কার পেয়েছে। টেকসই অর্থায়নের ক্ষেত্রে কান্ট্রি ক্যাটাগরিতে ব্যাংকটি মাইক্রোফাইন্যান্স ও অ্যাগ্রি বিজনেস খাতে বেস্ট সিন্ডিকেট লোন, জ্বালানি সক্ষমতায় বেস্ট সিন্ডিকেট লোন এবং বেস্ট লোন অ্যাডভাইজার হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।
ভালো অবস্থায় থাকা ১৬টি ব্যাংক হলো- প্রাইম ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, এনসিসি ব্যাংক, মিডল্যান্ড ব্যাংক, ব্যাংক এশিয়া, সীমান্ত ব্যাংক, যমুনা ব্যাংক, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক, ব্যাংক আলফালাহ, উরি ব্যাংক, এইচএসবিসি, কমার্শিয়াল ব্যাংক অব সিলন, সিটি ব্যাংক এনএ, হাবিব ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক ও স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। এদের মধ্যে সবুজ অবস্থানে দেশীয় ব্যাংকের সংখ্যা মাত্র ৮টি।

 

 

লাল অবস্থানে থাকা ব্যাংকগুলো হলো- বাংলাদেশ কমার্স ব্যাংক, পদ্মা ব্যাংক, বেসিক ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্তান, ন্যাশনাল ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক ও এবি ব্যাংক।

হলুদ অবস্থানে রয়েছে দুটি রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক ও সোনালী ব্যাংক। ১৯টি প্রচলিত বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংক এবং আটটি শরিয়া-ভিত্তিক ইসলামী ব্যাংক। এগুলো হলো- আইএফআইসি ব্যাংক, মেঘনা ব্যাংক, ওয়ান ব্যাংক, ইউনাইটেড বাণিজ্যিক ব্যাংক, এনআরবি ব্যাংক, এনআরবি বাণিজ্যিক ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক, প্রিমিয়ার ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, সাউথইস্ট ব্যাংক, সিটি ব্যাংক, ট্রাস্ট ব্যাংক, এসবিএসি ব্যাংক, মধুমতি ব্যাংক, ঢাকা ব্যাংক, উত্তরা ব্যাংক এবং পূবালী ব্যাংক।

আটটি শরিয়া-ভিত্তিক ব্যাংক হলো- ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, সোশ্যাল ইসলামী ব্যাংক, আল আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক, স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক, ইউনিয়ন ব্যাংক, এক্সিম ব্যাংক এবং গ্লোবাল ইসলামী ব্যাংক।

উল্লেখযোগ্য কিছু ব্যাংক ব্যবসার নাম উল্লেখ করে ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে- ‘সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড’ এর আয় বাড়লেও এ ব্যাংকের মুনাফা কমেছে সাড়ে ৩৭%। এছাড়াও ব্যাংকগুলো যে প্রবাসী আয়ে নিজেদের প্রণোদনা বন্ধ করেছে, বিষয়টি তাদের দৃষ্টি এড়ায়নি।

 

এককীভূত করণ চিন্তার ইতি ও নেতিবাচক দিক

তাদের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ব্যাংক একীভূত করার একটি উদ্যোগ চলছে তাই তারা জানতে চাইছেন ব্যাংক একীভূত করার উদ্যোগের ভবিষ্যত কী হবে? ব্যাংক একত্রীকরণ করা হলে ঋণখেলাপিদের ব্যাপারে কী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে এমনতো সকল মানুষই জানতে চাইবে। প্রাসংগিক যে, “ন্যাশনাল ব্যাংক” একীভূত না হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে ব্যাংক একীভূতকরণ সঠিক হবে না। একীভূতকরণের ফলে কিছু লোক তো তাদের কাজ হারাবে এবং এটাই স্বাভাবিক। এতে করে সেবার মান নিচে নেমে আসবে। অতএব ভালো ফল বয়ে আনবে না।

এদিকে বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিকদের প্রবেশ নিষেধের বিষয়ে সাংবাদিক নেতাগন প্রশ্ন তুলেছেন এই বলে যে, লুটপাটের তথ্য চেপে রাখতেই কি বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা লাগানো হয়েছে। এ প্রেক্ষিতে সর্বশেষ জানা গেছে যে বাংলাদেশ ব্যাংকের সংবাদ সম্মেলন বর্জন করেছেন সাংবাদিকগন। বাংলাদেশ ব্যাংকে সাংবাদিক প্রবেশে নিষেধাজ্ঞাকে স্বেচ্ছাচারী পদক্ষেপ বলে আখ্যায়িত করেছে “ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ”(টিআইবি)।

এছাড়া ব্যাংক খাত টেনে তোলার পরামর্শ দিয়েছে আইএমএফ এক সংবাদ সম্মেলনে। আবার শক্ত সামর্থ সুশৃঙ্খল ব্যাংক খাতের জন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংককে শক্তিশালী করার পরামর্শ দিয়েছেন এডিবি কান্ট্রি ডিরেক্টরও।

সবচেয়ে বড় প্রশ্ন কেন হাজার হাজার কোটি টাকা লোপাটকারীদের ধরা হচ্ছে না।

সারা দেশের ব্যাংকিং খাতে এমন কিছু পরিবর্তন আনতে সক্ষম হবে না শুধুমাত্র খিলগাঁও তালতলা সিটি করপোরেশন সুপারমার্কেটে ডিজিটাল মাধ্যমে লেনদেনের সুযোগ করে দেয়ায়। দেশের ৮বিভাগীয় শহরে অনুরূপ ৮টি ডিজিটাল লেনদেন কেন্দ্র করে দিতে সক্ষম হলে তবেই ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নপূরণ এগিয়ে যাবে। 

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT