1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে জুড়ি-ফুলতলা সড়কে আবার কাজ শুরু হয়েছে - মুক্তকথা
সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ০৯:১৩ অপরাহ্ন

মন্ত্রীর হস্তক্ষেপে জুড়ি-ফুলতলা সড়কে আবার কাজ শুরু হয়েছে

জুড়ী থেকে সংবাদদাতা॥
  • প্রকাশকাল : মঙ্গলবার, ২৫ মে, ২০২১
  • ৭৭৭ পড়া হয়েছে

জুড়ী থেকে ফুলতলা রাস্তাটি মৌলভীবাজার জেলার মধ্যে খুবই গুরুত্বপূর্ণ সীমান্তবর্তী শুল্কষ্টেশনে যাওয়ার একটি রাস্তা। জাতীয়ভাবেও এ রাস্তার গুরুত্ব রয়েছে অপরিসীম। এই রাস্তাটির দূর্দশার কারণে এলাকার কর্মব্যস্ততা স্থবির হয়ে পড়েছে। জুড়ী, বটুলী, ফুলতলা মৌলভীবাজার জেলার ৩টি ব্যস্ততম ও গুরুত্বপূর্ণ সীমান্তবর্তী এলাকা। রাস্তাটির দূর্দশার কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হয় এলাকার সকল মানুষসহ যাতায়াতকারী সকল যাত্রী সাধারণকে।
দেশের উত্তর-পূর্ব সীমান্তে যোগাযোগের ক্ষেত্রে জুড়ী থেকে ফুলতলা রাস্তাটির জাতীয় গুরুত্বও রয়েছে অপরিসীম। বলা ভুল হবে না যে এ রাস্তাটির বেহাল দশা জাতীয় উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ রাস্তার কারণে কর্মি মানুষের নষ্ট হয় হাজার হাজার কর্মঘণ্টা। স্কুল-কলেজ মাদ্রাসায় পড়ুয়া ছাত্র-ছাত্রী ও পরীক্ষার্থীদের যথাসময়ে পরীক্ষার হলে পৌঁছতে না পারা একটি নিত্যনৈমিত্তিক বিষয়। শুধু কি তাই, এই রাস্তায় নিদারুণভাবে অ্যাম্বুলেন্সেই মারা গেছেন রোগী, এমন মর্মান্তিক উদাহরণও আছে। রাস্তাটি পুনঃনির্মাণ ও সংস্কারের দীর্ঘসূত্রিতা আরও প্রকট করে তুলেছে পুরোনো সমস্যাগুলোকে।

বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোহাম্মদ শাহাব উদ্দিন এমপি বলেছেন, মৌলভীবাজারের জুড়ী থেকে ফুলতলা সড়কের কাজের মানের ব্যাপারে ঠিকাদারসহ কাউকে কোনোরূপ ছাড় দেয়া হবে না। এই সড়কের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে তিনি ইতোমধ্যেই অবহিত হয়েছেন। রাস্তাটি বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী থাকায় জনসাধারণের কষ্ট হচ্ছে। ইতোমধ্যে দায়িত্বপ্রাপ্ত সকল কর্মকর্তাকে যথাযথ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে যাতে রাস্তাটি জনসাধারণের চলাচলের উপযোগী করে দেয়া হয়। দ্রুততম সময়ের মধ্যে কাজ শুরু করে শেষ করতে হবে এবং কাজের গুণগতমান অবশ্য ঠিক রাখতে হবে। জুড়ী টু বটুলী সড়কের কাজের মান ও সড়কটি বর্তমানে চলাচলের অনুপযোগী হওয়ায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনার সৃষ্টি হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে শুক্রবার(২১ মে) রাতে এক ভিডিওবার্তায় এসব নির্দেশনা দেন মন্ত্রী।

উল্লেখ্য, ফুলতলা-বটুলী রাস্তার মজবুতকরণ ও বর্ধিতকরণ কাজ নিয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে সোস্যাল মিডিয়ায় তুমুল আলোচনা-সমালোচনা শুরু হলে এলাকার সন্তান বন, পরিবেশ ও জলবায়ূ পরিবর্তন মন্ত্রী মোহাম্মদ শাহাবুদ্দীন আহমদ এগিয়ে আসেন সহায়তায়। ফলে, পরিবেশমন্ত্রীর নির্দেশনার পর শনিবার(২২মে) ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে আবার কাজ শুরু করা হয়েছে।
এদিকে, যোগাযোগ করা হলে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান জানায় এখনও না-কি ওই রাস্তার কাজের অনুমোদনই মেলেনি! রাস্তা সংস্কার মূল প্রকল্পের ২২ কিলোমিটার কাজ নির্দিষ্ট সময়ে শেষ করা যায়নি করোণা মহামারির কারণে। তাদের মতে নানা প্রতিকূলতার মধ্যেও প্রকল্পের ৫৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ঠিাকাদারী প্রতিষ্ঠান বাকী কাজের জন্য ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় চেয়েছে।
এদিকে, সওজ’এর অনুমোদনহীন অংশের কাজ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরে সামাজিক মাধ্যমে তীব্র সমালোচনা হলে, মৌলভীবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগ একটু নড়ে-চড়ে বসেন এবং সামাজিক মাধ্যমের এমন সমালোচনাকে অপপ্রচার, অনভিপ্রেত ও দুঃখজনক বলে দায় সারেন।

বিশ্বাসযোগ্য সূত্র থেকে জানা গেছে, জুড়ীলফুলতলা-বটুলী শুল্ক স্টেশন পর্যন্ত ভাঙাচোরা প্রায় ২২ কিলোমিটার রাস্তাটি ৭৮ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রশস্ত ও মজুবতকরণের কাজ পায় ওয়াহিদ কনস্ট্রাকশন নামক ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান। দুই বছর মেয়াদে কাজ সম্পন্নের জন্য ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারিতে কাজ শুরুর নির্দেশ পেয়ে কাজ শুরু করে প্রতিষ্ঠানটি। পরে রাস্তার ১০ কিলোমিটার জায়গার কাজের দায়িত্ব প্রদান করে স্থানীয় একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে।

এ ব্যাপারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ওয়াহিদ কন্সট্রাকশন লিমিটেডের প্রতিনিধি মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান বলেন, পরিবেশমন্ত্রীর নির্দেশনার পর আমরা পুরোদমে কাজ শুরু করেছি এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করব।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT