1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
মৌলভীবাজারে বন্যার উন্নতি কিন্তু কাউয়াদীঘি হাওর পাড়ের অর্ধ্ব লক্ষ মানুষের দুশ্চিন্তা এখনো কাটেনি - মুক্তকথা
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন

মৌলভীবাজারে বন্যার উন্নতি কিন্তু কাউয়াদীঘি হাওর পাড়ের অর্ধ্ব লক্ষ মানুষের দুশ্চিন্তা এখনো কাটেনি

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : বুধবার, ২০ জুন, ২০১৮
  • ২৮৪ পড়া হয়েছে

রাজনগরের ওয়াপধা বাঁধে নতুন ভাঙ্গন : বাঁধ রক্ষার চেষ্ঠা অব্যাহত

মৌলভীবাজার অফিস।। মৌলভীবাজারের সার্বিক বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। শহরের পশ্চিমাংশ থেকে ধীরে ধীরে পানি নিচের দিকে নেমে যাচ্ছে। জেলা সদর নিয়ে ৩টি উপজেলাসহ ৪টি এলাকার বন্যা দুর্গত মানুষের পাশে থেকেই কাজ করছে জেলা প্রশাসন। সবচেয়ে আশার কথা হলো, দুর্গত মানুষের জন্য জেলা প্রশাসনের সাথে সরকারের মন্ত্রী ও সচিবগণ এবং সংশ্লিষ্ট উর্ধতন কর্মকর্তারা বন্যা দুর্গতদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। পাশাপাশি মৌলভীবাজার পৌরসভা, স্থানীয় সকল রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনও সকলের সাথে একযোগে কাজ করে যাচ্ছে। সেচ্ছাসেবকগন অত্যন্ত দক্ষতার সাথে বন্যার্থদের কাছে শুকনো খাবার, বিশুদ্ধ পানি ও চাল, ডাল, তেলসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রবাদি পৌঁছে দিচ্ছেন।
মৌলভীবাজার-কুলাউড়া সড়ক চালু হয়েছে ঠিকই তবে এখনও মৌলভীবাজার-সিলেট মহাসড়ক চালু হয়নি। তবে খুব শীঘ্রই চালু হয়ে যাবার সম্ভাবনা রয়েছে বলে প্রশাসন থেকে আভাস পাওয়া গেছে। সর্বশেষ খবরে জানা গেছে মৌলভীবাজারে মনু নদীর পানি ৬.৭ সেন্টিমিটার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে, পাহাড়ি ঢল ও কয়েক দিনের ঠানা বৃষ্টিতে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে আমাদের প্রতিনিধি জানিয়েছেন। দুশ্চিন্তার বিষয়, কুশিয়ারার তীর ঘেঁষা কালাইরগুল ওয়াপদা বাঁধ ভেঙ্গে কুশিয়ারার পানি এখন প্রবলবেগে কাউয়াদীঘি হাওরে প্রবেশ করছে।
জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন, মৌলভীবাজার জেলার ৪টি উপজেলায় ৩০টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভা বন্যায় প্লাবিত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে ৪০ হাজার পরিবারের ১,৯৩,৪০০জন মানুষ। মারাগেছেন ৮জন।  ত্রাণ বিতরণ করা হচ্ছে। সেনাবাহীনী স্পিডবোট ও লাইফজ্যাকেট দিয়ে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে।

সাহায্য বন্টনের একপর্বে বাঁধ ভাঙ্গা নিয়ে আওয়ামীলীগ নেতৃবৃন্দের সামনে প্রকাশ্যে ভিডিও-তে কিছু কথা বলে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন ৯নং ওয়ার্ডের পৌর কমিশনার মাসুদ আহমদ। তিনি বলেছেন জেলা শহরের বারৈকোনায় বাঁধ ভাঙ্গা পূর্বপরিকল্পিত। এ নিয়ে জুনেদ আহমদ তার ফেইচ বুকে যা লিখেছেন তা হুবহু এখানে তুলে দেয়া হলো।
Juned Ahmed 7 hrs· “…বিদেশীদের অনুদানে আজ বড়কাপন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভ্রাম্যমাণ আশ্রয় কেন্দ্রে ত্রাণ বিতরণ এর সময় মৌলভীবাজার পৌর মেয়র আওয়ামীলীগ সভাপতি এবং সম্পাদকে এক হাত নিলেন গরিব এর বন্ধু জনপ্রতিনিধি জনাব মাসুদ (কাউন্সিলর ৯ নং ওয়ার্ড)। তিনি দাবি করেন উক্ত বন্যা এবং বারইকোনা বাঁধ ভাঙা পুরোপুরিভাবে পরিকল্পিত। এর সাথে প্রভাবশালী নেতারা জড়িত বলেও তিনি দাবি করেন। post : copied ( Nahidul Islam Chowdruy)।

মৌলভীবাজার থেকে আমাদের প্রতিনিধি লিখেছেন, পাহাড়ি ঢল ও কয়েক দিনের ঠানা বৃষ্টিতে কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার অনেক উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। নদীস্রোতের প্রবলগতিবেগ পাশের কালাইরগুল-চাঁদনীঘাট সড়কের ওয়াপধা বাঁধে প্রতিনিয়ত আঘাত হানছে। দুদিন হলো জেলার রাজনগর উপজেলার কালাইরগুল এলাকায় কুশিয়ারা নদীর পাড়ে মনু প্রকল্পের ওয়াপধা বাধে ভাঙ্গনের সৃষ্টি হয়েছে। সেনাবাহিনী ও সংশ্লিষ্টদের সহযোগীতায় বাশঁ, গাছ ও বস্তা ভর্তি বালি ফেলে শ্রোতধারার কিছুটা কমিয়ে আনা হয়েছে।
ভাঙ্গনের সর্বশেষ খবর নিতে বুধবার বিকেলে উত্তরভাগ ইউনিয়ন সদস্য জুয়েল আহমদ ও মজনুর রহমান এর সাথে আলাপের সময় তারা বলেন, ভাঙ্গন কবলিত দুই পার্শ্বে বাঁশ দিয়ে আড় বেধেঁ গাছ-পালা ছেড়ে দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি বস্তা ভর্তি বালি ফেলে দেয়া হচ্ছে। এতে শ্রোতের গতিবেগ কিছুটা কমেছে। আশা করা যাচ্ছে এতে কাজ হবে। এদিকে ভাঙ্গন এক্ষুনি ঠেকানো না গেলে রাজনগরের উত্তরভাগ, মুন্সিবাজার, ফতেহপুর ও সদর উপজেলার খলিলপুর, আকাইলকুড়া ও একাটুনা ইউনিয়নের প্রায় অর্ধ্ব লক্ষ মানুষ ক্ষতিগ্রস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
এদিকে স্থানীয় প্রতিনিধিরা জানিয়েছেন, এভাবে প্রবল বেগে পানি হাওরে ঢুকতে থাকলে উত্তরভাগ ইউনিয়নের রাজাপুর, সুপ্রাকান্দি,সুরিখাল, সুনামপুর, উমরপুর,কান্দিগাও, শাফাতপুর, রুস্তুমপুর ও মুন্সিবাজার ইউনিয়নের সোনাটিকি, কাজিরহাট ও মেদেনীমহল ও ফতেপুর ইউনিয়নের বেড়কুড়ি, শাহাপুর, জাহিদপুর, আব্দুল্লাহপুর এলাকাসহ শতাধিক গ্রাম ক্ষতিগ্রস্থ হবে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের রাজনগর উপজেলার এসডিও মুখলেছুর রহমান জানান, যত দ্রুত সম্ভব আমরা বাঁধ মেরামতের চেষ্টা করছি। এদিকে বাঁধ মেরামতে সেনাবাহিনীর একটি টিম সার্বিকভাবে সহযোগীতা করে চলেছে। মৌলভী বাজার শহর দিয়ে প্রবাহিত মনু নদীর পানি কমে বিপদসীমার নীচে চলে গেলেও বুধবার ২০শে জুন পর্যন্ত মৌলভীবাজার-শেরপুর সড়কের বড়হাট, এলজিইডি প্রাঙ্গন, সদর উপজেলা প্রাঙ্গনে এখনো হাঠু সমান পানি রয়ে গেছে।
মৌলভীবাজার পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহি প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) আনিছুর রহমান বুধবার বিকেলে জানান, কাউয়াদিঘি হাওর রক্ষার জন্য ৬টি পাম্প দিয়ে পানি নিস্কাশন করা হচ্ছে। এই ছয়টি পাম্প দিয়ে প্রতি সেকেন্টে দেড় শত ঘনফিট পানি বের হয়। তিনি আরো বলেন, দুদিন হাওরে পানি বেড়েছে কিন্তু বুধবার বাড়তে দেখা যায়নি।

সাংবাদিক Aminur Rashid 10 hrs· লিখেছেন, “মৌ: বাজারের সাংবাদিকতা খুবই লজ্জাজনক। এখানে বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি শুরু হয় ঈদের আগের দিন থেকে এবং ঈদের পরের দিন পর্যন্ত চলতে থাকে। ঐ সময় টিভি চেনেল গুলায় বন্যার কোন খবর বা ছবি দেখানো হয়নি। এখন মানুষ সম্পূর্ণ বিপদ মুক্ত, এখন বর্তমান ছবির সাথে পুরনো তথ্য দিয়ে খবর প্রচার করে গণমানুষকে ভয় দেখানোর মতলব দূর্বোধ্য। এখন এই সব বাসি খবর দেখার- শুনার দরকার নেই বলে জনগন মনে করে।”

সাংবাদিক হাসনাত কামাল তার ফেইচবুকে লিখেছেন- “ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে হলদিগুল এলাকায়। এতে রাজনগরের বেশকটি গ্রাম নতুন করে প্লাবিত হচ্ছে। বাড়ছে কাউয়াদীঘি হাওরের পানি। পানি উন্নয়ন বোর্ড, সেনাবাহিনী এবং স্থানীয় উদ্যোগে বাঁধ মেরামতের চেষ্টা চলছে। বন্যার পানি মনু প্রকল্পের ভেতর প্রবেশ করে রাজনগর উপজেলার উত্তরবাগ, ফতেহপুর ও মুন্সীবাজার ইউনিয়নের বন্যা পরিস্থিতি অবনতি হয়েছে। এছাড়া সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের হামরকোনা এলাকায় কুশিয়ারা নদীর পানি প্রবেশ অব্যাহত থাকায় ওই ইউনিয়নের তিনটি গ্রাম ও মনুমুখ ইউনিয়নের ২টি গ্রাম তলিয়ে রয়েছে।
এদিকে মৌলভীবাজার শহর থেকে পানি অনেকটাই নেমে গেছে। যদিও এখনও অনেক আবাসিক এলাকায় পানি আছে, …রাস্তায় বড় বড় গর্ত ও ভাঙ্গন ধরেছে।
বন্যা কবলিত এলাকার বহু মানুষ চরম দুর্ভোগে আছেন, বিশেষ করে বিশুদ্ধ খাবার পানি সংকটে। যারা আশ্রয় কেন্দ্রে বা ঘরের বাইরে অন্যত্র যাননি তাঁদের কাছে বিশুদ্ধ পানি, ত্রাণ বা খাবার কম যাচ্ছে। তবে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায় এবং স্বেচ্ছাসেবকগন চেষ্টা করছেন পৌঁছে দিতে।”
মৌলভীবাজার পৌরসভার মেয়র বড়হাট এলাকায়, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, সংসদ সদস্য রাজনগর ও সদরে এবং কমলগঞ্জের এমপি দিনভর ত্রাণ ও খাবার বিতরণ করে যাচ্ছেন। জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম জানান, বন্যা দুর্গতদের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ পর্যন্ত ১৩ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা এবং ১১৪৩ মেট্রিকটন চাল ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে। ৫ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। ৬৭টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। পূণবার্সনের জন্য বরাদ্ধ হয়েছে ১ হাজার বান্ডিল টিন এবং ৩০ লক্ষ টাকা। জেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা প্রায় আড়াই লাখ মানুষ। moulvibazar today এ খবর দিয়েছে।

ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের ত্রাণ বিতরণ

ছাত্রলীগের উদ্যোগে ত্রান বিতরণ করা হয় মৌলভীবাজারে। গত মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক  এস এম জাকির হোসাইন এর নেতৃত্বে  শহরের সৈয়ারপুর আশ্রয় কেন্দ্রে ত্রান বিতরণ করা হয়।
এসময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আকস্মিক এ বন্যায় জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেনাবাহিনী প্রেরন করেছেন, কেউ যাতে না খেয়ে থাকে না সেজন্য যথেষ্ট পরিমাণ ত্রান সামগ্রী পাঠিয়েছেন এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদেরকে  বন্যার্ত মানুষের পাশে এসে সহযোগিতার নির্দেশ দিয়েছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মিছবাহুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক ও পৌর মেয়র ফজলুর রহমানসহ অনেকেই।

মৌলভীবাজার শহর ও রাজনগর উপজেলায় পৃথক ত্রান বিতরণ করা হয়েছে


বুধবার দুপুরে রাজনগর উপজেলার কামারচাক, কদমহাটা ও তারাপাশা  এলাকায় ত্রান বিতরণ করেন জেলা বিএনপির সভাপতি এম নাসের রহমান। এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি এম এ মুকিত, সাংগঠনিক সম্পাদক বকসী মিসবাউর রহমান, সহ-সাধারণ সম্পাদক হেলু মিয়া, দপ্তর সম্পাদক ফখরুল ইসলাম, রাজনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি জিতু মিয়া, সাধারণ সম্পাদক সুন্দর বকস, জেলা যুবদলের  সভাপতি জাকির হোসেন উজ্জল, সাধারণ সম্পাদক মুহিত আহমেদ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোবারক হোসেন, জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সাধারণ সম্পাদক জি এম মুক্তাদির রাজু , ১ম যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল হাই পিপলু, জেলা ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক আকিদুর রহমান সোহানসহ অনেকেই।

সরকারের কাছে পর্যাপ্ত ত্রাণ ও বন্যার স্থায়ী সমাধান চেয়েছে জেলা জামাত

   

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রিয় সেক্রেটারী জেনারেল ডাঃ শফিকুর রহমান বলেছেন, আকস্মিক বন্যায় মৌলভীবাজার জেলায় ক্ষয়ক্ষতি পরিমান প্রায় ৫শ কোটি টাকা। সরকারের বরাদ্দ আসলো ৪০ লক্ষ টাকা । এটা জনগণের সাথে উপহাস ছাড়া আর কিছু নয়। আমরা সরকারের কাছে সাময়িক ত্রাণ চাই না, সমস্যার স্থায়ী সমাধান চাই।
তিনি আরো বলেন, প্রতি বছর টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ি ঢল নামবে আর সমস্ত ঘর-বাড়ী, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও ক্ষেতের ফসল তলিয়ে যাবে এবং মাছ চাষীদের জীবিকা নির্বাহের স্বপ্ন নিঃশ্বেষ হয়ে যাবে আর সরকার দু-চার বস্তা ত্রাণ পাঠাবে এটা আমরা চাই না। আমরা চাই অসহায় ও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ক্ষতি পোষানোর লক্ষে সরকারের দ্রুত সফল উদ্যোগ গ্রহন ও বন্যা সমস্যার স্থায়ী সমাধান।
তিনি মঙ্গলবার মৌলভীবাজার জেলা সফরে বন্যা দূর্গত এলাকা পরিদর্শন করে দূর্গত মানুষের খোঁজ-খবর নেন ও সমবেদনা জানিয়ে মৌলভীবাজার পৌরসভা, রাজনগর ও কুলাউড়া উপজেলার বন্যা দূর্গত মানুষের মধ্যে ত্রাণ সমগ্রী বিতরণকালে উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট বিভাগীয় টিম সদস্য দেওয়ান সিরাজুল ইসলাম মতলিব, জেলা আমীর মোঃ আব্দুল মান্নান, জেলা সেক্রেটারি ইঞ্জিনিয়ার মোঃ শায়েদ আলী, জেলা সহকারি সেক্রেটারি মোঃ ইয়ামীর আলী, পৌর আমির আলাউদ্দীন শাহ, রাজনগর উপজেলা আমির আবু রাইয়ান শাহিন, কুলাউড়া উপজেলা আমির মাস্টার আব্দুল বারি, সদর উপজেলা আমির সৈয়দ তারেকুল হামিদ, ছাত্রশিবিরের শহর সভাপতি আব্দুল্লাহ আল-মামুন, জেলা সভাপতি আব্দুল মুমিত,রাজানুর রহিম ইফতেখার, আব্দুল মুনতাজিম, আয়ূব আলী, ফখরুল ইসলাম ও মুর্শেদ আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।

উপজেলা চেয়ারম্যানের ত্রাণ বিতরণ

এদিকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান মিজান এর উদ্যোগে বন্যার্তদের মাঝে ত্রান বিতরনকরা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে সদর উপজেলার মনুমূখ ইউনিয়নের মনুমূখ বাজারে বন্যা কবলিত এলাকায় দূর্গত মানুষের মাঝে প্রায় ৬ মেট্রিকটন চাল বিতরণ করা হয়। এসময় সাথে ছিলেন স্থানীয় ২নং মনুমূখ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হক শেফুল, ইউ/পি সদস্য মহসিন মিয়া, আমিরুল ইসলাম সাহেদ, মোঃ শাহ আলম, রিপন মিয়া, শেখ সাহেদ, ইলিয়াছ কবির শাহিন, কয়েছ মিয়া, মোঃ শেজিম প্রমূখ।  এদিকে

ভিডিওগ্রাফি ওয়েলফেয়ার সোসাইটি

মৌলভীবাজার জেলা ভিডিওগ্রাফি ওয়েলফেয়ার সোসাইটির উদ্যোগে বিশুদ্ধ খাবার পানি, খাওয়ার স্যালাইন ও শুকনা খাবার শেরপুর আজাদ বক্স উচ্চ বিদ্যালয়ে বিতরণ করা হয়েছে বলে Moulvibazar Express live at Sherpur, লিখেছেন আহমেদ নাঈম।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT