1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
রাজনীতির রকমফের - মুক্তকথা
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০৩:৫৮ অপরাহ্ন

রাজনীতির রকমফের

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : রবিবার, ৮ এপ্রিল, ২০১৮
  • ১১৮৮ পড়া হয়েছে

হাওর বাচাঁতে ৭ দফা দাবী জানিয়ে মৌলভীবাজারে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

মৌলভীবাজার অফিস।। হাওর বাচাঁতে ৭ দফা দাবী জানিয়ে মৌলভীবাজারে জেলা প্রশাসক বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। রোববার দুপুরে হাওর রক্ষা সংগ্রাম কমিটি মৌলভীবাজার জেলা শাখার আয়োজনে এ স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। স্মারকলিপিতে জানানো হয় যে গত তিন বছরে জেলার বৃহৎ হাওরগুলোতে জলাবদ্ধতা ও মানবসৃষ্ট নানা কারণে কৃষকেরা বোরো ফসল ঘরে তুলতে পারেননি। এতে জেলার হাজার হাজার ক্ষেতমজুর মারাতœকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়ে ভিটে মাটি ও জমিজমা বিক্রি করে নিঃস্ব হয়েছেন। লিখিত পত্রে জেলা প্রশাসকের কাছে হাওর ও কৃষক বাঁচাতে ৭ দফা দাবীর বাস্থবায়ন চাওয়া হয়। দাবীগুলো হলো- কাশিমপুর পাম্প হাউসে সার্বক্ষনিক বিদ্যুৎ সরবরাহ করে বোরে মৌসুমে পানি সেচ অব্যাহত রাখা। কোদালী ছড়া পুনঃখননসহ গোপলা নদীর সাথে সংযোগ স্থাপন করে ছড়ার দুই পাড়ে রাস্থা প্রসস্থ করা। ফানাই,সোনাই, ধলাই ও জুড়ী নদীর মোহনা খনন করা। ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার পিটাইটিকর এলাকার কুশিয়ারা নদী সংলগ্ন ইটভাটা সরিয়ে বুড়িকিয়ারী বাঁধ অপসারন করা। দেশের বৃহত্তম হাওর হাকালুকিকে হাওর উন্নয়ন প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করে হাওর অঞ্চলে কৃত্রিম জলাবদ্ধতা যাতে না হয় সেদিকে সতর্ক দৃষ্টির দাবী জানানো হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, হাওর রক্ষা সংগ্রাম কমিটির সভাপতি এডভোকেট ময়নুল রহমান মগনু, সাধারন সম্পাদক জুনেদ আহমদ চৌঃ, সদস্য মুহিবুর রহমান খাঁন, জাকির আহমদ জগলু, কৈশিক দেব, আলমগীর হুসেন, রাজন আহমদ, ময়নুল ইসলাম, কয়েস খাঁন, কৃষক আনসার মিয়া, জুবেদ আহমদ চৌঃ, আলী মিয়া প্রমুখ।

অতীতের বিভেদ ভুলে একই মঞ্চে মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি।। বিভক্ত মৌলভীবাজার জেলা বিএনপি নেতারা একই মঞ্চে বসে সভা করলেন। গত রোববার ছিল মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির আয়োজনে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে জেলা কমিটির প্রতিনিধি সমাবেশ। এই সমাবেশে উপস্থিত নেতৃবৃন্দের উদ্দেশ্যে লন্ডন থেকে টেলি কনফারেন্সে কথা বলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তারেক রহমান। মৌলভীবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি এম নাসের রহমানের সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির চেয়ার পার্সনের উপদেষ্ঠা ও সাবেক মন্ত্রী আমান উল্লাহ আমান, বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক(সিলেট বিভাগ) সাখাওয়াত হাসান জীবন।
মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, অন্যায় দন্ড বাতিল, অবিলম্বে দেশমাতার মুক্তি ও নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবীতে এই প্রতিনিধি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে আমান বলেন, দেশে এখন ক্রান্তিকাল চলছে। খুন, গুম, ধর্ষণ, মিথ্যা মামলা, হামলা, রাহাজানি, ব্যাংক ডাকাতি, উন্নয়নের নামে লুটপাঠ, প্রশ্নপত্র ফাঁস ও নকল প্রথায় শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস, আদালত ও বিচার বিভাগ দখল, গণতন্ত্র ও মানুষের বাক স্বাধীনতাও হরন করেছে এই জালিম সরকার। পুলিশি বাধায় নেতাকর্মীরা রাজপথে আন্দোলন করতে পারেনা। শত শত মিথ্যা মামলায় নাজেহাল নেতাকর্মীরা।
জিয়াউর রহমানের শাসন আমল ও বেগম খালেদা জিয়ার শাসন আমলের নানা উন্নয়ন কর্মকান্ডের উদাহরণ তুলে ধরে জনাব আমান বলেন, জনগণই আওয়ামীলীগের শাসন আমলের সাথে তুলনা করে বিএনপি আমলকেই ভাল বলে। আর এটাতেই যত জ্বালা আওয়ামীলীগের। তিনি বলেন কারাগার থেকে অসুস্থ বেগম খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য পিজিতে নেওয়া হলে সেখানে তাকে নানা ভাবে কষ্ট দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্ধী রেখে সরকারী খরচে জনগণের টাকায় প্রধানমন্ত্রী ভোট চাইছেন। সরকার পরিকল্পিত ভাবে আবারো সাজানো নির্বাচনের পায়তারা করছে।
বর্তমান সরকারকে স্বৈরাচারী জালিমসরকার আখ্যায়িত করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমে শেখ হাসিনার পতন ঘটানোর আহবান জানান। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাখায়াত হাসান জীবন বলেন জনপ্রিয় নেত্রীকে মিথ্যা সাজানো মামলায় কারান্তরীণ রাখা হয়েছে। নানা ষড়যন্ত্র আর কুটকৌশল করে তারেক জিয়াকেও দেশে আসতে দেওয়া হচ্ছেনা। এ অবস্থায় আওয়ামীলীগ ও শেখ হাসিনার হাতে দেশ, জনগণ ও গণতন্ত্র আজ নিরাপদ নয়। দেশকে এই সংকটাপন্ন অবস্থা থেকে মুক্ত করতে হলে আন্দোলন ছাড়া কোন বিকল্প নেই।
সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন মিলন বলেন গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। তারেক জিয়াকে দেশে ফিরিয়ে আনতে হবে। তাই দেশ ও দলের এই দু:সময়ে নেতাকর্মীদের মাঠের আন্দোলনে সক্রিয় থাকতে হবে।
জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি এম নাসের রহমান বলেন নানা প্রতিকূলতার মধ্যে এই সমাবেশ হচ্ছে। পুলিশ আজ স্বৈরতন্ত্রের তকমা লাগিয়ে রাজপথে আওয়ামীলীগ কর্মীর ভূমিকা রাখছে।
জেলা বিএনপির সহ সভাপতি আশিক মোশারফ ও সাংগঠনিক সম্পাদক বকশী মিসবাউর রহমানের যৌথ পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সহ সভাপতি এ্যাডভোকেট আবেদরাজা, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মৌলভী ওয়ালী সিদ্দিকী, আলহাজ্ব আব্দুল মুকিত, জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক জাকির হোসেন উজ্জ্বল, জেলা যুবদল নেতা মুজিবুর রহমান মজনু, জেলা শ্রমিক দল সভাপতি রফিকুল ইসলাম রসিক।
আরো উপস্থিত ছিলেন সিলেট মহানগরণ বিএনপির সহ-সভাপতি সালেহ আহমদ খসরু। কোরআন তেলায়াত করেন সদর থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফখরুল ইসলাম। এছাড়াও প্রতিনিধি সমাবেশে জেলা, উপজেলা, পৌর বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT