1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
লোহার বা টিনের প্লেটের পরিবর্তে বাঁশ - মুক্তকথা
বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:০০ পূর্বাহ্ন

লোহার বা টিনের প্লেটের পরিবর্তে বাঁশ

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : বুধবার, ২ নভেম্বর, ২০১৬
  • ৩৪২ পড়া হয়েছে

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ভবনে
লোহা বা টিনের পরিবর্তে বাঁশ ব্যবহার !
হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল
এএফএম রফিকুল ইসলাম বলেন
প্রয়োজন মনে করলে তদন্ত করেও দেখা যেতে পারে।

rmc-bamboo_29327_1477987972মুক্তকথা: লন্ডন, বুধবার ২রা নভেম্বর ২০১৬।।  একটি অনলাইনের খবর ছিল এরকম- রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের নতুন চারতলা একটি ভবনের লিফটের পাশ থেকে দুটি বাঁশের বাতা বেরিয়ে এসেছে। বাতার ওপর থেকে টাইলস উঠে গেলে সোমবার বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নজরে আসে।

এনিয়ে গণমাধ্যমে খবর বের হলে মঙ্গলবার গণপূর্ত অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা ভবনটি পরিদর্শন করেছেন।

এসময় গণপূর্ত অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী লতিফুল ইসলাম সেখানে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, ‘এটি কোনো সমস্যা নয়। মূল ভবনের  মেঝে বরাবর লিফটের সংযোগ স্থাপনে সামান্য ফাঁকা  রাখা হয়, এটি নিয়ম। এই ফাঁকা জায়গাটি ঢালাই করে দেয়া হলে লিফটের রক্ষণাবেক্ষণে সমস্যা হয়। এর সঙ্গে মূল ভবনের কোনো সম্পর্কই নেই। এই স্থানটিতে প্লাস্টার করে টাইলস বসানোর জন্য বাঁশের বাতা ব্যবহার করা হয়েছে। এনিয়ে এত হৈচৈয়েরও কিছু নেই।

মঙ্গলবার সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বেরিয়ে পড়া বাঁশের বাতাগুলো সরিয়ে নেয়া হয়েছে। এখন তিনতলার লিফট ও মূল ভবনের মেঝের মধ্যে প্রায় পাঁচ ইঞ্চি জায়গা ফাঁকা অবস্থায় রয়েছে। লিফটের দরজায় দাঁড়িয়ে ওপরের দিকে চোখ রেখে দেখা যায়, সেখানেও বাঁশের বাতার ব্যবহার করা হয়েছে।

এদিকে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএফএম রফিকুল ইসলাম, রাজশাহী গণপূর্ত অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী লতিফুল ইসলাম, উপ-সহকারী প্রকৌশলী জাহিদ হাসান, মাসুম আল হাসান, আবু হেলাল আনসারী ও নাফিজ মাহমুদ ভবনটি পরিদর্শন করেন।

রডের পরিবর্তে বাঁশের বাতা ব্যবহারের যৌক্তিকতা কতোটুকু-জানতে চাইলে নির্বাহী প্রকৌশলী লতিফুল ইসলাম বলেন, সেখানে বাঁশের বাতার পরিবর্তে লোহার অ্যাংগেল বা টিনের প্লেট ব্যবহার করা যেত। এতে ভবনের কোনো ক্ষতি হবে না।

‘রাজশাহী মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়’ নামে একটি ফেসবুক পেজে বিষয়টি তুলে ধরে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ ও তদন্তের দাবি জানিয়ে পেজটিতে লেখা হয়- ‘রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নবনির্মিত ভবনের তৃতীয় তলায় লিফটের সামনে ভাঙা অংশে দেখা যায়, সেখানে লোহার রডের পরিবর্তে বাঁশ ব্যবহার করা হয়েছে। এখানে যে কোনো সময় ঘটতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা। ওই ভবনে অবস্থানরত কয়েকশ রোগীর প্রাণহানি ঘটতে পারে। যারা এ কাজ করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে জোর আবেদন জানাচ্ছি।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এএফএম রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমি এখানে যোগ দেয়ার আগে ভবনটি নির্মিত হয়েছে। সকালে আমরা সবাই জায়গাটি পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। তবে গণপূর্ত বিভাগের প্রকৌশলীদের কথায় আমরা আস্থা রাখছি। প্রয়োজন মনে করলে তদন্ত করেও দেখা যেতে পারে।

বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে ভবন নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান মার্ক বিল্ডার্সের সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। রাজশাহী গণপূর্ত অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী লতিফুল ইসলামও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানটির কারও মুঠোফোন নম্বর দিতে পারেন নি।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালে প্রায় ৩০ কোটি টাকা ব্যয়ে ভবনটি নির্মাণ করেছে গণপূর্ত অধিদফতর। ২০১২ সালের ১৭ জুলাই তৎকালীন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ.ফ.ম রুহুল হক ভবনটির উদ্বোধন করেছিলেন।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT