1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
১২৩০ খৃষ্ট অব্দে মোঙ্গলরা অধিকার করেছিল আধুনিক পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গ্রাম জর্জিয়ার ওমালো - মুক্তকথা
সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:৫৬ পূর্বাহ্ন

১২৩০ খৃষ্ট অব্দে মোঙ্গলরা অধিকার করেছিল আধুনিক পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গ্রাম জর্জিয়ার ওমালো

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : সোমবার, ৩১ জুলাই, ২০১৭
  • ৩৭০ পড়া হয়েছে

ককেসিয়া পর্বতমালার পিরিখিতি গিরিখন্ডে অবস্থিত জর্জিয়ার দুনিয়াখ্যাত ওমালো গ্রামের একাংশ।

লন্ডন: দুনিয়ার সবচেয়ে সুদর্শন মায়াময় আবার ভীতিপ্রদ সড়কপথ রয়েছে জর্জিয়ায়। দেশের উত্তর-পূর্বদিকের তুসেতি অঞ্চলে যেতে হলে এ রাস্তাটি ধরেই যেতে হয়। রাস্তাটি পাহাড়ের গা ঘেষে সাগরস্তর থেকে পাথর পাহাড়ের ৫,৪১৩ ফুট উঁচুতে থেকে শুরু। শেষ হয়েছে ১৪,৭৪০ ফুট উপরে সেই তুসেতি অঞ্চলে গিয়ে। রাস্তা থেকে দুনিয়ার নয়নাভিরাম দৃশ্য পৃথিবীর আর কোথায়ও এমন দেখার সুযোগ নেই। কিন্তু ভয়ও আছে। কারণ রাস্তাটি রয়েছে ককেসিয়াস পর্বতমালার উত্তরা ঢালুতে। সরু গিরিসংকটময় সে রাস্তা ককেসাস পর্বতমালার ৪টি বিভিন্ন নামের গিরিখাদের প্রান্তদেশ ঘেঁষে ৯৮৪২ফুট উপরে উঠে গেছে। ভয়ঙ্কর গিরিখাদ নিয়ে সরু সে প্রান্তদেশগুলি হল- পিরিকিতি, গোমেতসেরি, চাগমা ও চাঙ্কাখভানি।

মঙ্গলদের আক্রমন থেকে আত্মরক্ষার উদ্দেশ্যে ১২৩০ সালে নির্মিত হয়েছিল এ টাওয়ারগুলো। তারই পুনঃনির্মিত একটি কেসেলো টাওয়ার।

এই তুসেতি অঞ্চলে যাওয়াকে পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর পথে ভ্রমণ বলে বিবেচনা করা হয়। জর্জিয়ায়, ওমালো নামের পৃথিবীর সবচেয়ে বড় গ্রাম রয়েছে। রয়েছে তাদের জনমিলনকেন্দ্র ‌ওই গিরিশীর্ষে। গ্রাম ওমালো, জর্জিয়ার কাকেতি অঞ্চলের আখমেতা জেলায় অবস্থিত। ইতিহাস খ্যাত কেসেলোদূর্গ রয়েছে ওখানে। ১২৩০ খৃষ্টাব্দে মঙ্গলদের অভিযানের সময় এ দূর্গটাওয়ারগুলো নির্মাণ করা হয়। ওই গ্রামে পৌছার একমাত্র সড়কপথ হলো এটি যা উপমহাদেশের খাইবারপাসের চেয়েও হাজারগুন বিপদজনক ‘আবানো পাস’ অতিক্রম করে যেতে হয়। তথ্যসূত্র: ব্লগারামা ও উইকিপিডিয়া

 

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT