1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
আজ গেলো মুন্সী আশরাফ হোসেন সাহিত্য রত্নের মৃত্যুদিবস - মুক্তকথা
বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন

আজ গেলো মুন্সী আশরাফ হোসেন সাহিত্য রত্নের মৃত্যুদিবস

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : রবিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৫১১ পড়া হয়েছে

মুক্তকথা প্রতিবেদন॥ সাহিত্যরত্ন মুন্সী আশরাফ হোসেন(১৮৯২-১৯৬৫)
মুন্সী আশরাফ হোসেন সাহিত্যরত্ন। তিনি ছিলেন একজন বাঙালি কবি, গবেষক এবং পুঁথি ও লোকসাহিত্য সংগ্রাহক। তার জন্ম হয়েছিল ১৮৯২ সালে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ থানার রহিমপুর গ্রামে। তার সে সময়ের মুসলমানদের সামাজিক রীতিনীতি মোতাবেক তিনি স্থানীয় মক্তবে গিয়েই শিক্ষা জীবনের শুরু করেন। কওমি মাদ্রাসায় পাঁচ বছর শিক্ষা গ্রহনের পর তিনি মুনশি উপাধি লাভ করেছিলেন।
কমলগঞ্জ উপজেলার কালিপ্রসাদ মধ্য ইংরেজি স্কুলে তিনি তৃতীয় শ্রেণী পর্যন্ত পড়াশোনা করেছিলেন। এর তিন বছর পর ১৯১৮ সালে তিনি নিজ গ্রামে স্থাপন করেন একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং এই প্রাথমিক বিদ্যালয়েই তিনি শিক্ষকতা দিয়ে জীবন শুরু করেন। ১৯২২ সালে তিনি এই স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিযুক্ত হয়েছিলেন। ‌ওই একই বছর শিলচর নর্মাল স্কুল থেকে গুরু ট্রেনিং পরীক্ষা পাশ করেন।
স্থানীয় স্মৃতি ‌ও শ্রুতি থেকে যতদূর জানা যায়, বিভিন্ন সাময়িকী ও পত্র-পত্রিকায় স্থানীয় সমস্যাদি নিয়ে লেখালেখির মধ্য দিয়েই মুন্সী তার সাহিত্য চর্চা শুরু করেছিলেন। ১৯১৮ সাল থেকে তার সাহিত্য চর্চ্চা শুরু বলে বাংলাপেডিয়া লিখেছে। যদি‌ও তারা এর কোন সূত্র উল্লেখ করেনি। ‌তবে ওই সময় থেকেই মুন্সি আশরাফ হোসেন লোকসাহিত্য সংগ্রহ নিয়ে কাজ শুরু করেন। এরই ফলে খ্যাতিমান ঐতিহাসিক দীনেশচন্দ্র সেনের পূর্ববঙ্গ-গীতিকা গ্রন্থে তার সংগৃহিত মণিপুরের লড়াই সংকলিত হয়েছিল।
তিনি ১২টি মৌলিক গ্রন্থ প্রণয়ন করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে আশরাফ দেওয়ানা, ভূমিকম্পের কবিতা, আদম খাঁ দেওয়ানের গীত ইত্যাদি। লোকসাহিত্য বিষয়ে তার সম্পাদিত ৩০টি গ্রন্থ রয়েছে যার মধ্যে রয়েছে দিলকুশ কন্যার বারমাসী, শান্তিকন্যার বারমাসী, লিলাইর বারমাসী, মধুমালার গীত প্রভৃতি। এছাড়াও তিনি ১৭টি পাঠ্যপুস্তক প্রণয়ন করেছেন। যেমন মক্তবি বাল্যশিক্ষা, সাহিত্য সুধা, নববিধান ধারাপাত ইত্যাদি। প্রাচীন মাসিক আল ইসলাহ পত্রিকায় তার রচিত সিলহটের ইতিহাস ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হয়েছিল।
সাহিত্যে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে মুর্শিদাবাদ বঙ্গ সাহিত্য মন্ডল ১৯৩৫ সালে তাকে পুরাতত্ত্ববিদ উপাধি দেয়। ১৯৪৩ সালে আসাম সরকার তাকে সাহিত্য বৃত্তি প্রদান করেন। ১৯৫২ সালে নিখিল বঙ্গ সাহিত্য সংঘ তাকে সাহিত্যরত্ন ও কাব্যবিনোদ উপাধি দেয়। ১৯৬৫ সালে পাকিস্তান সরকার তাকে তমগা-ই-কায়েদে আজম উপাধি প্রদান করে। বাংলা একাডেমি তাকে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছিল।
আশরাফ হোসেন ১৯৬৫ সালের ২৪ জানুয়ারি নিজ গ্রামে মৃত্যুবরণ করেন। সূত্র: স্থানীয় স্মৃতি ও শ্রুতি এবং উইকিপিডিয়া।  সংকলনে: হারুনূর রশীদ, ২৪জানুয়ারী ২০২১

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT