1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
রাণীর হুকুম, একদফা ব্যবহারের সকল প্লাষ্টিক সামগ্রী নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছে - মুক্তকথা
রবিবার, ২১ জুলাই ২০২৪, ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন

রাণীর হুকুম, একদফা ব্যবহারের সকল প্লাষ্টিক সামগ্রী নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছে

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : রবিবার, ১৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮
  • ২২১ পড়া হয়েছে

কোন একটি ধনী দেশের সাগরসৈকতে প্লাষ্টিক বর্জ্যের ভয়ঙ্কর এক নমুনা।

একদফা ব্যবহারের পর আর কোন কাজে আসে না। ছুঁড়ে ফেলে দেয়া হয় যত্র-তত্র। বিশেষ করে নদীরধারে বা সাগরতীরের ব্যবহারকারীরা এসব বর্জ্য পানিতে ফেলে দেন নির্দ্বিধায়। শহর-নগর-বাজারে ব্যবহারের পর ফেলে দেয়া এসব প্লাষ্টিক বর্জ্য নালার জলে ভেসে ভেসে আর গড়িয়ে গড়িয়ে আসে কাছের নদীর জলে। এর পর এদের শেষ গন্তব্য সাগর। এই ফেলে দেয়ার উপর কিছু করারও থাকেনা কোন কর্তৃপক্ষের। ধনী দেশগুলো মাঝে মাঝে বহু খরচ করে সাগরতীরে ভেসে থাকা প্লাষ্টিক বর্জ্য বিভিন্ন সময় পরিষ্কার করার উদ্যোগ নেয়। যা বিস্তীর্ণ সাগরের জলরাশিতে ভেসে থাকা বর্জ্যের তুলনায় খুবই নগন্য। এই  কিছু করতে না পারার মূল কারণ এখানে ব্যবসা জড়িত। আর তাই, জোয়ান্না নামের একজন মহিলা ডাক্তার এগিয়ে এসেছেন প্লাষ্টিক বর্জ্য কমানোর কাজে।
অন্যদিকে আশার কথা শুনা গিয়েছে যে, দেশের ধনবানদের অর্থলুলোপ ব্যবসার কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক মন্দা ঠেকাতে ব্রেক্সিটের পর এবার শক্তিশালী নিষেধাজ্ঞা আসছে প্লাষ্টিক সামগ্রীর ব্যবহারের উপর। জানা গেছে যে এ সপ্তাহেই রাণী একদফা ব্যবহারের সকল প্লাষ্টিক সামগ্রী ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা আনতে যাচ্ছেন সকল রাজকীয় প্রতিষ্ঠান ও স্কটল্যাণ্ডে। ফলে প্লাষ্টিক সামগ্রীর উপর নিষেধাজ্ঞা দেয়ার প্রথম ইউরোপীয়ান দেশ হবে বৃটেন। প্লাষ্টিক বর্জ্য কমাতেই এ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে বলে ধারণা।
জানা যায়, জোয়ান্না বেটারটন পেশায় একজন ডাক্তার। তিনি তার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে রাজী করাতে পেরেছেন একদফা ব্যবহারযোগ্য প্লাষ্টিক সামগ্রীর ব্যবহার কমাতে। একদফা ব্যবহারের পর ফেলে দেয়া প্লাষ্টিকবর্জ্যের আশংকাজনক বিস্তার দেখে ডাঃ জোয়ান্না উদ্যোগ নিয়েছেন এবং দেশের বড় বড় ‘সুপারমার্কেট’গুলোকে এসব প্লাষ্টিক বর্জ্য কমিয়ে আনার উদার আহ্বান জানিয়েছেন।
একদফা ব্যবহারের পর আর কোন কাজে আসে না। ছুঁড়ে ফেলে দেয়া হয় যত্র-তত্র। বিশেষ করে নদীরধারে বা সাগরতীরের ব্যবহারকারীরা এসব বর্জ্য পানিতে ফেলে দেন নির্দ্বিধায়। এই ফেলে দেয়ার উপর কিছু করারও থাকেনা কোন কর্তৃপক্ষের। কিছু করতে না পারার মূল কারণ এখানে ব্যবসা জড়িত। আর তাই, ডাঃ জোয়ান্না নামের ওই ডাক্তার মহিলাই এগিয়ে এলেন প্লাষ্টিক বর্জ্য কমানোর প্রচার কাজে।
ডাঃ জোয়ান্না ‘আসদা’, ‘সেইন্সবারী’, ‘টেস্কো’, ‘ওয়েইটরোজ’, ‘কোপারেটিভ’, ‘মার্কস এন্ড স্পেন্সার’, ‘আলদি’, ‘লিডল’ এবং ‘মরিসন’দের প্রতি কাতর আহ্বান জানিয়েছেন আমাদের সাগর নদীর জলকে বর্জ্যমুক্ত বিশুদ্ধ পরিচ্ছন্ন রাখায় সহায়তা করতে। তিনি আহ্বান জানিয়েছেন প্লাষ্টিক বর্জ্যের পরিমাণ কমিয়ে আনায় সক্রিয় সহায়তার জন্য।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT