1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
নিরাপদ আশ্রয়ে নেয়া কেমডেনের চালকট টাওয়ার ব্লকের শতাধিক বাসিন্ধা নিরাপত্তা ভয়ে ফিরতে চাচ্ছেন না - মুক্তকথা
শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০২৪, ১১:৩২ পূর্বাহ্ন

নিরাপদ আশ্রয়ে নেয়া কেমডেনের চালকট টাওয়ার ব্লকের শতাধিক বাসিন্ধা নিরাপত্তা ভয়ে ফিরতে চাচ্ছেন না

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : রবিবার, ২৩ জুলাই, ২০১৭
  • ৪৬৮ পড়া হয়েছে
নিরাপদ আশ্রয়ে নেয়া হচ্ছে

লন্ডন: লন্ডনের গ্রেনফেল টাওয়ারে নারকীয়ভাবে আগুনে পোড়ে শতাধিক মানুষের মৃত্যুর পর কেমডেন কাউন্সিল তাদের চালকট এস্টেটের শতসহস্র আবাসিককে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়েছিল গত জুনমাসে। তাদের কথাছিল টাওয়ার দালানের নিরাপত্তা বিধান হয়ে গেলে তাদেরকে আবার ফিরিয়ে আনা হবে নিজ নিজ ফ্লাটে। অনেকেই ফিরেছেন কিন্তু শ’খানেকের উপর বাসিন্ধা ফিরে আসতে রাজী নন। তাদের একটিমাত্র কথা, নিরাপত্তার কোন লিখিত কাগজ না পাওয়া পর্যন্ত কারো মুখের কথায় তারা টাওয়ারে ফিরে যাবেননা। 
চালকট এস্টেটের এসব টাওয়ারে ব্যবহৃত বাইরের আবরণ, গ্রেনফেল টাওয়ারে ব্যবহৃত আবরণের মত একই জাতের হওয়ার কারণে ফায়ার সার্ভিসের পরিদর্শনে নিরাপদ নয় বলা হলে, নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে কাউন্সিলই এসব বাসিন্ধাদের সরিয়ে নিয়েছিল। গতকাল গার্ডয়ানের বরাত দিয়ে ইভিনিং ষ্ট্যান্ডার্ড এ খবর প্রকাশ করেছে। 
২৭ বছর বয়সের রবার্ট কুকাজ এ নিয়ে একটি ফেইচবুক খুলে লিখেছেন যে, কাউন্সিল যে বিপদের কথা বলে আমাদের সরিয়েছিল তার সমাধান হয়েছে, এরূপ কোন লিখিত কাগজ না পাওয়া পর্যন্ত কি বিশ্বাসে আমরা ফিরে যেতে পারি! বিপদ সারানো হয়েছে শুধু মুখে মুখে বলা হচ্ছে আর কেমডেনের ওয়েবসাইটে লিখা হয়েছে। আমরা বছরের পর বছর এমন একটি বিপজ্জনক দালানে বসবাস করে আসছিলাম। কাউন্সিলের সাথে কোন সম্পর্ক রাখে না এমন কোন স্বাধীন সংস্থার দ্বারা পরিদর্শন করানো হলে আমরা ফিরে যেতে পারি। 
একজন আইনজীবী যিনি চালকটের আবাসিকদের আইনী সহযোগীতা করছেন, গার্ডিয়ান পত্রিকার কাছে বলেছেন যে তার কতিপয় মক্কেলকে ফ্ল্যাটে ফিরে যাবার জন্য কাউন্সিল লিখে জানিয়েছে। কাউন্সিল লিখেছে যে তাদের হোটেল ভাড়া আর দেয়া হবে না এবং তাদের খুব শীঘ্র অবশ্যই ফিরে যেতে হবে এবং আগের মত ভাড়া দেয়া শুরু করতে হবে। 
উক্ত আইনজীবী বলেন, তিনি কাউন্সিলকে লিখেছেন যে তার মক্কেল অবশ্যই অস্থায়ী হোটেল ব্যবস্থায় থাকবে যতদিন না পর্যন্ত তাদের দালানের নিরাপত্তার লিখিত কোন সনদ দেখানো না হবে।
আরেকজন শিরলি ফিলিপস স্কাই নিউজকে বলেছেন, যে দালানের অগ্নিনিরাপদ দরজা লাগাতে অনুমান আরো কমপক্ষে ৬সপ্তাহ লাগবে এবং ৯ মাসের মত লাগবে দালানের বাইরের আবরণ(ক্লেডিং) লাগাতে। সুতরাং কিভাবে নিরাপদ হলো যে আমরা যাবো! 
কাউন্সিল বলছে যে মোট ৬৪১ আবাসিকের মধ্যে ৫৬৪ জন ফিরে গেছে এবং সকল কাজ লন্ডন ফায়ার ব্রিগেড ও স্বাধীন পরীক্ষকদল পরীক্ষা করে অনুমোদন করেছেন।
কাউন্সিল লিডার জর্জিয়া গোল্ড বলেছেন-“আমরা অত্যাবশকীয় কাজ সম্পন্ন করেছি সুতরাং কিছু বাসিন্ধা ফেরৎ যাওয়া শুরু করতে পারেন।” তিনি আরো বলেন, “আমরা নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেবো, তবে ইতিমধ্যে লন্ডন ফায়ার ব্রিগেড আমাদের বলেছে যে কাজ যা হয়েছে তাতে এক দফা বাসিন্ধাদের ফিরিয়ে নেয়া যেতে পারে। তিনি আরে বলেন, চলমান ফিরে যাওয়া নির্ভর করছে প্রতিটি ফ্লোরের কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর। একেবারে নিচ তলা থেকে উপর তলা পর্যন্ত। আমরা বাসিন্ধাদের অবশ্যই জানাবো কখন তারা ফিরে যেতে পারবেন।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT