1. muktokotha@gmail.com : Harunur Rashid : Harunur Rashid
  2. isaque@hotmail.co.uk : Harun :
  3. harunurrashid@hotmail.com : Muktokotha :
আন্তর্জাতিক 'মা' দিবস, প্রাণীজগতে মা-য়ের স্থান অতুল্য, অনাদি ও অদ্বিতীয় - মুক্তকথা
শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

আন্তর্জাতিক ‘মা’ দিবস, প্রাণীজগতে মা-য়ের স্থান অতুল্য, অনাদি ও অদ্বিতীয়

সংবাদদাতা
  • প্রকাশকাল : রবিবার, ১৪ মে, ২০১৭
  • ২৩৪ পড়া হয়েছে

মুক্তকথা: ১৪ই মে আন্তর্জাতিক ‘মা’ দিবস। খুব বেশী ব্যাখ্যা করে বলার আবশ্যকীয়তা আছে বলে মনে হয়না। প্রণিধানযোগ্য ওই ‘মা’শব্দই তিন শব্দের এ বাক্যের পাঠোদ্ধারের জন্য যথেষ্ট। প্রাণীজগতে মা-য়ের স্থান অতুল্য ও অনাদি! আধুনিক মানব সভ্যতা সন্তানের প্রতি ‘মা’য়ের সেই অকৃত্তিম স্নেহ-মমতার ঋণ পরিশোধের এক মানবিক তাগিদ থেকেই ‘মা’ দিবসের সূচনা। ‘মা’ যে একটি বিশেষ স্থান জুড়ে আছে শাশ্বত সময়ের সেই সূচনা লগ্ন থেকে, তারই হৃদয় নিংরানো অকৃত্তিম ভালবাসার প্রকাশ ঘটাতেই বিশ্বমানুষ তার সংবেদনশীলতা দিয়ে তৈরী করে নিয়েছে মহান ‘মা’ দিবস। দুনিয়ার দেশে দেশে মার্চ থেকে মে মাসের মধ্যে এ দিবসটি বিশ্ব ‘মা’দের প্রতি সন্মান প্রদর্শনের জন্য ‘মা’দিবস নামে পালিত হয়ে থাকে। এটি মাতৃঋণ পরিশোধের মানবিক তাগিদ থেকে উৎসারিত।
বিশ্বের সর্বত্র মায়ের এবং মাতৃত্বের অনুষ্ঠান উদযাপন করতে দেখা যায়। দুনিয়ার বিভিন্ন দেশে এ দিনটি একটি ছুটির দিনও বটে। অবশ্য আধুনিক ছুটির দিন হল একটি আমেরিকান উদ্ভাবন যা সরাসরি সেই সব অনুষ্ঠান থেকে আসেনি। কিছু দেশসমূহে মা দিবস পুরোনো ঐতিহ্যের সমার্থক হয়ে গেছে।
একটি গোষ্ঠীর মতে এই দিনটির সূত্রপাত প্রাচীন গ্রীসের মাতৃ আরাধনার প্রথা থেকে যেখানে গ্রিক দেবতাদের মধ্যে এক বিশিষ্ট দেবী সিবেল-এর উদ্দেশ্যে পালন করা হত একটি উৎসব। এশিয়া মাইনরে মহাবিষ্ণুব-এর সময়ে এবং তারপর রোমে আইডিস অফ মার্চ (১৫ই মার্চ) থেকে ১৮ই মার্চের মধ্যে এই উৎসবটি পালিত হত।
প্রাচীন রোমানদের ম্যাত্রোনালিয়া নামে দেবী জুনোর প্রতি উৎসর্গিত আরো একটি ছুটির দিন ছিল, অবশ্য ওইদিনটিতে মায়েদের শুধু উপহারই দেওয়া হত।
মাদারিং সানডের মতো ইউরোপ এবং যুক্তরাজ্যে দীর্ঘকাল ধরে বহু আচারানুষ্ঠান ছিল যেখানে মায়েদের এবং মাতৃত্বকে সম্মান জানানোর জন্য একটি নির্দিষ্ট রবিবারকে আলাদা করে রাখা হত। মাদারিং সানডের অনুষ্ঠান খ্রিস্টানদের অ্যাংগ্লিকানসহ বিভিন্ন সম্প্রদায়ের পঞ্জিকার অঙ্গ। ক্যাথলিক পঞ্জিকা অনুযায়ী এটিকে বলা হয় লেতারে সানডে যা লেন্টের সময়ে চতুর্থ রবিবারে পালন করা হয় ভার্জিন মেরি বা কুমারী মাতার ও “প্রধান গির্জার” সম্মানে। প্রথানুযায়ী দিনটিকে সূচিত করা হত প্রতিকী উপহার দেওয়া এবং কৃতজ্ঞতাস্বরূপ রান্না আর ধোয়া-পোছার মত মেয়েদের কাজগুলো বাড়ির অন্য কেউ করার মাধ্যমে।
জুলিয়া ওয়ার্ড হোই রচিত “মাদার্স ডে প্রক্লামেশন” বা “মা দিবসের ঘোষণাপত্র” মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মা দিবস পালনের গোড়ার দিকের প্রচেষ্টাগুলির মধ্যে অন্যতম। আমেরিকান গৃহযুদ্ধ ও ফ্রাঙ্কো-প্রুশীয় যুদ্ধের নৃশংসতার বিরুদ্ধে ১৮৭০ সালে রচিত জুলিয়া-এর মা দিবসের ঘোষণাপত্রটি ছিল একটি শান্তিকামী প্রতিক্রিয়া। রাজনৈতিক স্তরে সমাজকে গঠন করার ক্ষেত্রে নারীর একটি দায়িত্ব আছে, জুলিয়ার এই নারীবাদী বিশ্বাস ঘোষণাপত্রটির মধ্যে নিহিত ছিল।
১৯১২ সালে আনা জার্ভিস স্থাপন করেন মাদার’স ডে ইন্টারন্যাশনাল অ্যাসোশিয়েশন্ (আন্তর্জাতিক মা দিবস সমিতি) এবং “মে মাসের দ্বিতীয় রবিবার” আর “মা দিবস” এইসব শব্দবন্ধের বহুল প্রচার করেন।
ছুটির দিনটি ক্রমে এত বেশি বাণিজ্যিক হয়ে পড়ে যে এটির স্রষ্টা আনা জার্ভিস এটিকে একটি “হলমার্ক হলিডে” অর্থাৎ যে দিনটির বাণিজ্যিক প্রয়োজনীয়তা অভিভূত করার মতো, সেই রকম একটি দিন হিসাবে বিবেচিত করেন।

এ জাতীয় সংবাদ

তারকা বিনোদন ২ গীতাঞ্জলী মিশ্র

বাংলা দেশের পাখী

বাংগালী জীবন ও মূল ধারার সংস্কৃতি

আসছে কিছু দেখতে থাকুন

© All rights reserved © 2021 muktokotha
Customized BY KINE IT